জাবি ভর্তি পরীক্ষায় মাদরাসা শিক্ষার্থীরা অমানবিক আচরণের শিকার : ইশা ছাত্র আন্দোলন

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষার্থীরা বৈষম্যমূলক আচরণের শিকার হচ্ছে বলে এর প্রতিবাদ জানিয়েছে ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন। ভর্তি পরীক্ষায় মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষার্থীরা যেভাবে বৈষম্যের শিকার হচ্ছে তা হিংসাত্মক, সাম্প্রদায়িক ও অসংবিধানিক বলে মন্তব্য করেছে সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

আজ ২০ অক্টোবর’১৮ শনিবার বেলা ৩.০০ টায় জাতীয় প্রেস ক্লাব চত্বরে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন আয়োজিত মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষার্থীদের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি বৈষম্যের প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধনে এমন মন্তব্য করেন সংগঠনের নেতারা।

ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি শেখ ফজলুল করীম মারুফ বলেন, দুর্ভাগ্যের বিষয় মেধা ও যোগ্যতার প্রশ্নে উত্তীর্ণ হবার পরেও মাদরাসা শিক্ষার্থীরা বর্নবাদী, সাম্প্রদায়িক, পশ্চাৎপদতা ও জুলুমের শিকার হচ্ছে।

ইশা ছাত্র আন্দোলন-এর কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি শেখ মুহাম্মাদ সাইফুল ইসলাম বলেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় জনগণের টাকায় পরিচালিত হয়। মাদরাসা শিক্ষার্থীরা এই দেশ ও মাটির সন্তান। তাদের প্রতি কোন ধরনের বৈষম্য সহ্য করা হবে না। মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড ২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষে দাখিল ও ২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষের আলিম পর্যায়ে সাধারণ শিক্ষর্থী ও মাদরাসা শিক্ষর্থীদের সিলেবাস এক ও অভিন্ন করে। তাহলে কেন এই বৈষম্য। এই বৈষম্যের কারণে দেশের উন্নতি ও অগ্রগতি ব্যাহত হবে বলে বক্তারা দাবি করেন।

উক্ত মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন-এর তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক শেখ মুহাম্মাদ আল-আমিন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সম্পাদক মুহাম্মাদ জিয়াউল হক জিয়া, প্রকাশনা সম্পাদক একেএম আব্দুজ্জাহের আরেফী, কলেজ সম্পাদক জি এম বায়েজীদ, স্কুল সম্পাদক এম এম শোয়াইব, কওমি মাদরাসা সম্পাদক ইউসুফ আহমাদ মানসুর, প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রিয়াদ প্রমুখ।

পূর্ববর্তি সংবাদদক্ষিণ আফ্রিকায় আগুনে পুড়ে ৫ বাংলাদেশির মৃত্যু
পরবর্তি সংবাদআমরা ক্ষমতায় গেলে ধর্মীয় মূল্যবোধকে প্রাধান্য দেবো : এরশাদ