জাতীয় পার্টির ৪৫ আসনে প্রার্থী যারা

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের অংশ হিসেবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি। আওয়ামী ও জাতীয় পার্টি ৪৫টি আসনে সমঝোতা করেছে বলে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার।

এই ৪৫টি আসন সমঝোতায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদ ও মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার গত রোববার সই করেছেন।

গতকাল মহাজোট যৌথভাবে ৩০০ আসনে আনুষ্ঠানিক প্রার্থী ঘোষণা করার কথা থাকলেও কৌশলগত কারণে করা হয়নি বলে প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান ওবায়দুল কাদের।

এদিকে বনানীর কার্যালয়ে পৃথক সংবাদ সম্মেলনে জাপা মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেছেন, আমরা মহাজোটগতভাবে নির্বাচন করব এবং ৪৫টি আসন পেয়েছি। আরও কিছু আসন নিয়ে আলোচনা করছি। জোটগতভাবে আমরা শিগগিরই প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করব।

এ সময় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, ফখরুল ইমাম, সাইদুর রহমান টেপা, এসএম ফয়সল চিশতী, নাসরিন জাহান রত্না, নুরুল ইসলাম ওমর, মেজর (অব.) খালেদ আখতার, শফিকুল ইসলাম সেন্টু, এম এ কাশেম, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, কাজী মামুনসহ বিভিন্ন স্তরের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

জাপার যে ৪৫ জন মনোনয়ন পেলেন তারা হলেন—রংপুর-৩ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, ঢাকা-১৭ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, ময়মনসিংহ-৪ বেগম রওশন এরশাদ, ময়মনসিংহ-৭ বেগম রওশন এরশাদ, পটুয়াখালী-১ এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, চট্টগ্রাম-৫ ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, ঢাকা-৬ কাজী ফিরোজ রশীদ, কক্সবাজার-৩ জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, রংপুর-১ মশিউর রহমান রাঙ্গা, কিশোরগঞ্জ-৩ মজিবুল হক চুন্নু, বরিশাল-৬ নাসরিন জাহান রত্না, নীলফামারী-৪ আলহাজ শওকত চৌধুরী/আদেলুর আদেল, কুড়িগ্রাম-৩ ড. আক্কাস আলী সরকার, গাইবান্ধা-১ ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, বগুড়া-২ শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ, বগুড়া-৩ নুরুল ইসলাম তালুকদার, বগুড়া-৬ নুরুল ইসলাম ওমর, বগুড়া-৭ অ্যাডভোকেট আলতাফ আলী, পিরোজপুর-৩ রুস্তম আলী ফরাজী, ময়মনসিংহ-৫ সালাউদ্দিন আহমেদ মুক্তি, ময়মনসিংহ-৮ ফখরুল ইমাম, ঢাকা-৪ সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, নারায়ণগঞ্জ-৩ লিয়াকত হোসেন খোকা, নারায়ণগঞ্জ-৫ সেলিম ওসমান, সুনামগঞ্জ-৪ পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ, সিলেট-২ ইয়াহিয়া চৌধুরী, সিলেট-৫ সেলিম উদ্দিন, কুমিল্লা-২ আমির হোসেন ভূইয়া, কুমিল্লা-৮ নুরুল ইসলাম মিলন, লক্ষ্মীপুর-২ মো. নোমান, লালমনিরহাট-৩ গোলাম মোহাম্মদ কাদের, খুলনা-১ সুনীল শুভ রায়, ফেনী-৩ লে. জে. (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, বরিশাল-২ মাসুদ পারভেজ (সোহেল রানা), হবিগঞ্জ-১ আলহাজ আতিকুর রহমান, গাইবান্ধা-৩ ব্যারিস্টার দিলারা খন্দকার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ রেজাউল ইসলাম ভূইয়া, কুড়িগ্রাম-২ পনির উদ্দিন আহমেদ, গাইবান্ধা-৫ এইচ এম গোলাম শহীদ রঞ্জু, রাজশাহী-৫ আবুল হোসেন, সাতক্ষীরা-২ আজাহার হোসেন, নীলফামারী-৩ মেজর (অব.) রানা মোহাম্মদ সোহেল/ফারুক কাদের, কুষ্টিয়া-১ শাহরিয়ার জামিল, নাটোর-১ মো. আবু তালহা, দিনাজপুর-৬ দেলোয়ার হোসেন। এ ছাড়া বরগুনা-২ আসনে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ মিজানুর রহমান, কুড়িগ্রাম-৪ আশরাফ-উদদৌলাসহ আরও ৫টি আসন জোটগতভাবে পাওয়ার আশা করছে জাতীয় পার্টি।

পূর্ববর্তি সংবাদহেফাজত ইসলামকে থামাতে মার্কিন কংগ্রেসের আহবান!
পরবর্তি সংবাদদুই মাস আগে বাবা, আজ মাকেও হারালেন মুফতি ফয়জুল্লাহ