ওপেক ত্যাগ করছে কাতার

ইসলাম টাইমস ডেস্ক:
পেট্রোলিয়াম রপ্তানিকারক দেশগুলোর সংস্থা (ওপেক) ত্যাগের ঘোষণা দিয়েছে কাতার। গ্যাস উৎপাদনে বেশি মনোযোগ দেওয়া দেশটি আগামী জানুয়ারিতেই ওপেক থেকে বের হয়ে যাবে। বিষয়টি এরই মধ্যে ওপেককে জানানো হয়েছে। গতকাল সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে কাতারের জ্বালানিমন্ত্রী সাদ আল-কাবি এই বিস্ময়কর পদক্ষেপের কথা জানিয়েছেন।

সৌদি আরব দীর্ঘদিন থেকেই ওপেকে প্রাধান্য বিস্তার করে আসছে। সাম্প্রতিক সময়ে সৌদি আরব ও উপসাগরীয় অঞ্চলে এর মিত্রদের সঙ্গে বিরোধ চলছে কাতারের। তবে এই বিরোধের সঙ্গে কাতারের ওপেক থেকে বের হয়ে যাওয়ার কোনো সম্পর্ক নেই বলে জানিয়েছেন জ্বালানিমন্ত্রী আল-কাবি। তিনি একই সঙ্গে কাতারের রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান কাতার পেট্রোলিয়ামেরও প্রধান।

১৯৬১ সাল থেকে ওপেকের সদস্য কাতার। কিন্তু এমন একটি সময়ে কাতার সংস্থাটি থেকে বের যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিল, যখন উপসাগরীয় রাজনীতি জটিল আকার ধারণ করেছে। এরই মধ্যে সৌদি আরবের নেতৃত্বে প্রতিবেশী দেশগুলো ১৮ মাস ধরে অবরোধ আরোপ করে রেখেছে দোহার ওপর।

এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে বিরোধের কোনো সম্পর্ক নেই উল্লেখ করে আল-কাবি বলেন, এই সিদ্ধান্ত কারিগরি ও কৌশলগত এবং আবরোধের সঙ্গে এর কোনো যোগসূত্রই নেই। তিনি বলেন, কাতার তেল উৎপাদন অব্যাহত রাখবে এবং লাতিন আমেরিকার শীর্ষ উৎপাদনকারী দেশ ব্রাজিলসহ অন্যান্য দেশের সঙ্গে চুক্তির চেষ্টা করবে। এ সিদ্ধান্ত নেওয়ার ‘আসল’ কারণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, তবে কাতার গ্যাস উৎপাদনকে প্রাধান্য দেওয়ার বিষয়টি অব্যাহত রাখবে।

বিশ্বের বৃহত্তম লিকুইফায়েড ন্যাচারাল গ্যাস (এলএনজি) রপ্তানিকারক দেশটির জ্বালানিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের বিশাল কোনো সম্ভাবনা (তেল উৎপাদনে) নেই। আমরা খুবই বাস্তববাদী।’ তিনি নিজেকে ‘মি. গ্যাস’ উল্লেখ করে বলেন, ‘আমাদের সম্ভাবনা হচ্ছে গ্যাস। আমি মনে করি, যেটা আপনার মূল ব্যবসা নয়, এমন কিছুর জন্য মনোযোগ দেওয়া অকার্যকর বিষয়।’

গত সেপ্টেম্বরে কাতার ঘোষণা দিয়েছিল, তারা ২০২৪ সালের মধ্যে গ্যাস উৎপাদন বাড়িয়ে ১১০ মিলিয়ন টনে উন্নীত করার পরিকল্পনা করছে।

ওয়ার্ল্ড ডাটা ডড ইনফোর তথ্য অনুযায়ী, কাতারের তেল উৎপাদন দিনে ছয় লাখ ব্যারেল। দেশটি বিশ্বের ক্রুড অয়েল উৎপাদনকারী ১৭তম বৃহত্তম দেশ। সিআইএ ওয়ার্ল্ড ফ্যাক্টবুকের মতে, বিশ্বের ভূগর্ভস্থ তেলের মজুদের ২ শতাংশ রয়েছে দেশটিতে।

সংবাদ সম্মেলনে কাবি বলেন, ঘোষণাটি সামনে রেখে সোমবার সকালেই ওপেককে এই সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, এর পরও তারা ভিয়েনায় সংস্থার আসন্ন সম্মেলনে অংশ নেবেন। আর এটাই হবে জ্বালানিমন্ত্রী হিসেবে তাঁর প্রথম ও শেষ সম্মেলনে অংশ নেওয়া।
সূত্র : বিবিসি

পূর্ববর্তি সংবাদনির্বাচনকালে আনসার সদস্যদের বরাদ্দ বাড়ানোর আবেদন
পরবর্তি সংবাদপর্যবেক্ষক দল পাঠানোর পাশাপাশি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র