গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারে সতর্ক হোন, জ্বালানি বিভাগ

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: সিলিন্ডার ব্যবহারে এবার জনসচেতনতা সৃষ্টির উদ্যোগ নিয়েছে জ্বালানি বিভাগ। তারই অংশ হিসেবে কিছু নিদের্শনাও জারি করেছে কর্তৃপক্ষ।

জ্বালানি বিভাগের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বাসাবাড়িতে এলপিজি সিলিন্ডার ব্যবহারের সময় অসতর্কতা বা সিলিন্ডারের ব্যবহার পদ্ধতি সঠিক না হওয়ার কারণে এলপিজি সিলিন্ডার থেকে গ্যাস নিঃসরণ হয়ে বিস্ফোরণ এবং অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে। দুর্ঘটনা এড়াতে কিছু নির্দেশনা অনুসরণ জরুরি। জনসচেতনতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে নির্দেশনাগুলো সবারই জানা উচিত।

জ্বালানি বিভাগ তিনটি ভাগে এই জনসচেতনতামূলক পরিপত্রটি জারি করেছে।

গ্রুপ-১ এ বলা হয়েছে, সিলিন্ডার আগুনে বা অন্যভাবে গরম হলে তরল এলপিজি দ্রুত গ্যাসে রূপান্তরিত হয়ে অস্বাভাবিক চাপ বৃদ্ধির ফলে সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হতে পারে। এজন্য সিলিন্ডার কোনোভাবেই চুলার বা আগুনের পাশে রাখা যাবে না। এতে বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। পাশাপাশি অতিরিক্ত গ্যাস বের করার জন্য এলপিজি সিলিন্ডারে তাপ দেওয়া যাবে না।

গ্রুপ-২ এ বলা হয়েছে, রান্না শেষে চুলা ও এলপিজি সিলিন্ডারের রেগুলেটরের সুইচ অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। গ্যাসের গন্ধ পেলে ম্যাচের কাঠি জ্বালানো যাবে না। ইলেকট্রিক সুইচ এবং মোবাইল ফোন অন বা অফ করা যাবে না। পাশাপাশি ঘরে গ্যাসের গন্ধ পেলে দ্রুত দরজা-জানালা খুলে দিতে হবে এবং এলপিজি সিলিন্ডারের রেগুলেটর বন্ধ করতে হবে। রান্না শুরু করার আধাঘণ্টা আগে রান্না ঘরের দরজা জানালা খুলে দিতে হবে।

গ্রুপ-৩ এ বলা হয়েছে, এলপিজি সিলিন্ডার খাড়াভাবে রাখতে হবে। কখনই উপুড় বা কাত করে রাখা যাবে না। চুলা সিলিন্ডার থেকে নিচুতে রাখা যাবে না। কমপক্ষে ৬ ইঞ্চি উপরে রাখতে হবে। চুলা থেকে যথেষ্ট দূরে বায়ু চলাচল করে এমন স্থানে এলপিজি সিলিন্ডার রাখতে হবে। রান্না ঘরের উপরে ও নিচে ভেন্টিলেটর রাখতে হবে। সিলিন্ডারের ভাল্বের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ রেগুলেটর ব্যবহার করতে হবে।

পূর্ববর্তি সংবাদআওয়ামী লীগের দুই মেয়াদে ২০ লাখ কোটি টাকার উন্নয়ন: পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের তথ্য
পরবর্তি সংবাদসাভারে সূতা তৈরির কারখানায় আগুন