মালয়েশিয়ার মুসলিমরা শুরু করেছে ভারতীয় ও চীনা বিরোধী আন্দোলন

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : জাতিগত বিভেদ নিয়ে মালয়েশিয়া শুরু হয়েছে নতুন সংকট। স্থানীয় মালয়, তামিল ও চৈনিক জাতিগোষ্ঠীর মাঝে বিভেদকে কেন্দ্র করে দেশটির রাজধানী কুয়ালালামপুরে এ তিন জাতির লোকজন রাস্তায় নেমে এসেছে।

দেশটির সংখ্যাগরিষ্ঠ জাতিগোষ্ঠী মালয় মুসলিমরা আজ শনিবার (৮ ডিসেম্বর) রাজধানী কুয়ালালামপুরের টুংকু আবদুর রহমান এলাকায় জামেক মসজিদ এবং মালয়েশিয়ার জাতীয় মসজিদের সামনে বিশাল জনসমাবেশের আয়োজন করেছে। মালয় মুসলিমদের এই প্রতিবাদ সমাবেশের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেছে বিরোধী দল এবং প্রভাবশালী কয়েকটি ইসলামি দল।

অন্যদিকে মালয়দের মতো সমঅধিকার পেতে কুয়ালালামপুরের আশপাশের কিছু এলাকায় জড়ো হয়েছিল তামিল ও চীনা বংশোদ্ভূত লোকজন। তারা জাতিসংঘ প্রণীত International Convention on the Elimination of All Forms of Racial Discrimination (ICERD) আইকার্ড-এর বাস্তবায়নের দাবিতে এরই মধ্যে প্রতিবাদ শুরু করেছে। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা তাদের সহায়তা করছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মালয়েশিয়া থেকে ইসলাম টাইমস-এর প্রতিনিধি মুকীম আহমাদ জানান, মালয়েশিয়ায় জাতিগত বিভেদ বেশ পুরোনো। সংখ্যাগরিষ্ঠ জাতি মালয় মুসলিমরা হলেও বিগত কয়েক বছর ধরে দেশটিতে ভারতীয় বংশোদ্ভূত তামিল এবং চাইনিজ বংশোদ্ভূত চৈনিকদের প্রভাব লক্ষ করা যাচ্ছে। যাদের অধিকাংশই অমুসলিম। মালয়রা চাচ্ছে না বিদেশি বংশোদ্ভূত এসব জাতির মানুষরা দেশটির সর্বক্ষেত্রে সমান অধিকার ভোগ করুক।

আমাদের প্রতিনিধি আরও জানান, আজকের সমাবেশের মূল কারণ হলো, সম্প্রতি মালয়েশিয়ার প্রশাসনিক রাজধানী পুত্রজায়াতে এই জাতিগত বিভেদ বিষয়ে জাতিসংঘের সহায়তায় একটি কনফারেন্স হওয়ার কথা ছিল। যেখানে জাতিগত বিভেদ তুলে দিয়ে সকল জাতির জন্য সমান অধিকার বিষয়ে নতুন আইন প্রণয়নে সরকারকে চাপ সৃষ্টি করার কথা ছিল।

কিন্তু বর্তমান মাহাথির মুহাম্মদ সরকার অনুষ্ঠিতব্য কনফারেন্সটি বাতিল করে দেয় এবং জাতিগত অধিকার বিষয়ে নতুন কোনো আইন করা হবে না বলে জানিয়ে দেয়।

এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ভারতীয় বংশোদ্ভূত তামিল ও চৈনিক বংশোদ্ভূত চীনারা রাস্তায় নেমে আসে। সংখ্যালঘু বিদেশি বংশোদ্ভূত তামিল ও চীনাদের প্রতিবাদের পরপরই মালয় মুসলিমরা তাদের দাবির বিপক্ষে রাজধানীতে শান্তিপূর্ণ জনসমাবেশের ডাক দেয়।

মালয়েশিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেতা নাজিব রাজ্জাক এ আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে সমাবেশস্থলে উপস্থিত হন।

আরও পড়ুন : চীনা ও ভারতীয় বিরোধী সমাবেশে অনন্য নজির স্থাপন করলো মালয়েশীয় মুসলিমরা

আমাদের প্রতিনিধি জানান, মালয়দের এ সমাবেশে নেতৃত্ব দিচ্ছি দেশটির প্রভাবশালী ইসলামি রাজনৈতিক দল পাস পার্টি, আমনো এবং দাওলাহ। তারা অমুসলিমদের সমঅধিকার প্রদানের প্রতিবাদে রাজধানীতে ৫ লাখ লোক সমাগমের ঘোষণা দিয়েছে। দেশটির বিভিন্ন অঞ্চল থেকে এরই মধ্যে দলে লোকজন রাজধানীতে আসতে শুরু করেছে। বিদেশিবিরোধী এ আন্দোলনে নেতৃত্ব দিচ্ছেন পাস পার্টির প্রধান নেতা হাজি আবদুল হাদি।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মুহাম্মদ এই আন্দোলনে একাত্মতা ঘোষণা না করলেও সমাবেশের অনুমতি দিয়ে বলেছেন, শান্তিপূর্ণ সমাবেশে তার সরকারের কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই।

পূর্ববর্তি সংবাদবিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলালো নিজ দলের নেতা-কর্মীরা!
পরবর্তি সংবাদকাশ্মিরে বাস দুর্ঘটনায় নিহত ১১, আহত ৩৪