ব্যভিচার-জুয়াখেলার প্রকাশ্য শাস্তি বলবৎ থাকবে ইন্দোনেশিয়ার আচেহ প্রদেশে

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : একটি মসজিদের সামনে বেত দিয়ে পেটানো হচ্ছিল ছয়-সাত জন ব্যক্তিকে, একজন একজন করে। যাদের পেটানো হচ্ছিল তাদের পরনে সাদা জুব্বা এবং মাথায় টুপি। বিভিন্ন বয়সের তারা। আর যে পেটাচ্ছিল, তার গায়ে কমলা রংয়ের আপাদমস্তক গেরুয়া পোশাক। মাথাসহ মুখমণ্ডল ঢাকা।

মসজিদের সামনে প্রায় হাজারখানেক স্থানীয় এলাকাবাসী দেখছিল এই শাস্তিদান কর্মকাণ্ড। অনেকে নিজেদের মোবাইল ফোনে ছবি তুলছিল উত্তেজক এ ঘটনার। আবার কেউ দূরে দাঁড়িয়ে আওয়াজ তুলছিল, ‘আরও জোরে মারো, আরও জোরে মারো…’।

যাদেরকে পেটানো হচ্ছে তাদের অপরাধ : একটি ইন্টারনেট ক্যাফেতে বসে সংঘবদ্ধভাবে অনলাইনে জুয়া খেলছিল তারা।

এ ঘটনা ইন্দোনেশিয়ার পূর্ব আচেহ প্রদেশের একটি গ্রামের। আচেহ প্রদেশের ‍পুরোটাই ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। ফলে ২০০১ সাল থেকে প্রদেশটিতে অনেকাংশে সরকারিভাবে ইসলামি শরিয়া আইন বলবৎ রয়েছে।

‘জুয়া খেলে তারা ইসলামি আইনের লংঘন করেছে, সুতরাং শাস্তি তো তাদের অবশ্য প্রাপ্য।’ এমনটাই বলছিলেন স্থানীয় প্রসিকিউটর অপরাধ বিভাগের প্রধান এক মাওলানা।

বিভিন্ন অপরাধে প্রকাশ্যে শাস্তি প্রদান আচেহ প্রদেশের একটি সাধারণ দৃশ্য। বিশেষত জুয়া, নেশা করা বা মদ্যপান, অবৈধ যৌনাচার  – এমনতর অপরাধের শাস্তি প্রকাশ্যেই দেয়া হয় স্থানীয় আদালতের মাধ্যমে।

পৃথিবীর সবচে বেশি মুসলিম জনসংখ্যার দেশ ইন্দোনেশিয়ার এই প্রদেশে ইসলামিক আইন অনেকাংশে সরকারিভাবে মান্য করা হয়। এ কারণে অপরাধের শাস্তি প্রদানের ইসলামি রীতি-নীতি তারা মেনে চলতে বদ্ধপরিকর।

এদিকে ইন্দোনেশিয়ার বর্তমান রাষ্ট্রপতি জোকো উইদোদু সম্প্রতি এ ধরনের প্রকাশ্য শাস্তির বিধান রহিত করতে আহ্বান জানিয়েছেন। কিন্তু রাষ্ট্রপতির আহ্বানে তেমন সাড়া মেলেনি। কেননা ৯৮ শতাংশ মুসলিম অধ্যুষিত আচেহ প্রদেশের প্রায় ৫০ লাখ জনগণ এই বিচারকে সমর্থন করে আসছে। তারা ইসলামি রীতি-নীতি মান্য করেন এবং ফৌজদারি অনেক অপরাধের শাস্তি প্রকাশ্যে প্রদানকে যুক্তিসংগত বলে মনে করেন।

অবশ্য এ বছরের শুরুর দিকে আচেহ প্রদেশের সরকারি প্রশাসন জানিয়েছে, তারা এ ধরনের শাস্তি কারাগারের ভেতরে নির্দিষ্ট স্থানে বাস্তবায়ন করবে। তবে গুরুতর অনেক অপরাধের শাস্তি অবশ্যই জনসম্মুখে করা হবে। এটা বন্ধ করা হবে না।

Source & Images: South China Morning Post

পূর্ববর্তি সংবাদযত ষড়যন্ত্র হোক আমি ভয় পাই না : প্রধানমন্ত্রী
পরবর্তি সংবাদভুল তথ্য দিয়ে ইজতেমার মাঠে আনা হয়েছিলো নিহত ইসমাইল মণ্ডলকে