দক্ষিণ আফ্রিকার মসজিদে আজান বন্ধ হবে না : নগর কর্তৃপক্ষ

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন শহরে মুসলিমরা প্রায় সাড়ে তিনশো বছর যাবত বসবাস করছে। দক্ষিণ আফ্রিকার ওয়েস্টার্ন কেপ অঞ্চলের শহরগুলোর মধ্যে কেপটাউনে সবচেয়ে বেশি মুসলিম বসবাস করে। দেশটির ৫৭ মিলিয়ন মুসলিম নাগরিকের ২ ভাগই বাস করে এই শহরে।

তারা শহরের অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের সাথে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বজায় রাখার ক্ষেত্রেও দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। কিন্তু সম্প্রতি গুজব ছড়িয়েছে কেপটাউন শহরের আজান নিষিদ্ধ করা হবে।  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন একটি সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় মুসলিমদের মধ্যে আতঙ্ক ও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

তবে মুসলিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের মুখপাত্র শায়খ ইসহাক তালিব বলেছেন, কেপটাউন নগর কর্তৃপক্ষ আজান বন্ধ করার কোনো পরিকল্পনা করেননি। বরং কিছু মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়িয়েছে নগর কর্তৃপক্ষ আজান নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনা করেছে। তাদের উদ্দেশ্য মুসলিম কমিউনিটিকে উত্তেজিত করা।

তিনি বলেন, আমরা আজ (বুধবার) নগর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে অত্যন্ত ফলপ্রসূ একটি বৈঠক করেছি। তারা বলেছেন, যে এলাকার অধিবাসীরা আজানের ব্যাপারে অভিযোগ তুলেছেন সেখানে একজন বিশেষজ্ঞ পাঠাবেন। তিনি আজানের শব্দের পরিমাপ ও স্তর পরীক্ষা করে দেখবেন।

তবে নগর কর্তৃপক্ষ মসজিদ পরিচালনা কমিটিকে অনুরোধ করেছেন তারা যেন একজন ইঞ্জিনিয়ার দ্বারা তাদের সাউন্ড সিস্টেম পরীক্ষা করিয়ে নেন এবং তা নাগরিক আইনের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ কিনা তা যাচাই করেন।

শায়খ ইসহাক তালিব আরও বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার জনগণ ধর্মীয় স্বাধীনতা উপভোগ করে। তবে আমরা এই স্বাধীনতাকে দায়িত্বের সঙ্গে বরণ করি। কারণ, আমাদের সমাজে রয়েছে ধর্মের বৈচিত্র। বিশেষত আমরা অবশ্যই আজানের সময় অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের কথা স্মরণ রাখি।’

তিনি দাবি করেন, আইনত বৈধ স্তরের চেয়ে আরও নিচু আওয়াজে দক্ষিণ আফ্রিকার মসজিদগুলোর আজান প্রচার করা হয়।

সূত্র : আন্দুলুস এজেন্সি

পূর্ববর্তি সংবাদঢাকা-আরিচা মহাসড়কে আন্তঃনগর বাসে আগুন
পরবর্তি সংবাদশহীদ বুদ্ধিজীবীদের শ্রদ্ধা জানালেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী