মানহানি মামলায় জামিন পেলেন ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : আজ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় আটক ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে ছয় মাসের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।  টেলিভিশনের লাইভ টকশোতে নারী সাংবাদিককে নিয়ে করা এক মন্তব্যের জেরে তার বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করা হয়।

মঙ্গলবার বিচারপতি রেজাউল হক ও বিচারপতি জাফর আহমেদের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এফ হাসান আরিফ। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মাসুদ রানা। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল খুরশীদুল আলম।

মাসুদ রানা বলেন, ঢাকার গুলশান থানায় ২৬ অক্টোবর করা এ মামলায় মইনুলকে ছয় মাসের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

উল্লেখ্য, গত ১৬ অক্টোবর রাতে বেসরকারি টেলিভিশন একাত্তরের টকশোতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে জামায়াতের এজেন্ট বললে তিনি সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে উদ্দেশ করে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করেন।

এ নিয়ে ফেসবুকে তার বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে। মাসুদা ভাট্টিসহ নারী সাংবাদিকরা মইনুল হোসেনকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার আহবান জানান। এ ঘটনায় ব্যারিস্টার মইনুল প্রকাশ্যে ক্ষমা না চাওয়ায় তার বিরুদ্ধে ঢাকার আদালতে মানহানির মামলা করেন মাসুদা ভাট্টি।

রংপুরে করা মানহানির এক মামলায় ২২ অক্টোবর রাত পৌনে ১০টার দিকে রাজধানীর উত্তরায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রবের বাসা থেকে মইনুল হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

এরপর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) কার্যালয়ে নেওয়া হয়। পরে আদালতে তোলা হলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

পূর্ববর্তি সংবাদবন্ধুর হাতে যেভাবে খুন হয় হাটহাজারী মাদরাসার ছাত্র আকবর
পরবর্তি সংবাদমাহবুব তালুকদারের বক্তব্য ‘অসত্য’, লেভেল ফিল্ড আছে : সিইসি