ন্যাটোনির্ভর নয়, শক্তিশালী সামরিক বাহিনী গড়ে তুলবে মুসলিম কসোভো

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : ইউরোপের মুসলিম দেশ কসোভো নিজস্ব সামরিক বাহিনী গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কসোভোর পার্লামেন্টে এ সংক্রান্ত একটি আইন বিপুল ভোটে পাশ হয়েছে। তবে প্রতিবেশী সার্বিয়া এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে বলছে বিষয়টি বলকান অঞ্চলের শান্তির পক্ষে হুমকি।

কসোভোর পার্লামেন্টের ১২০ জন সদস্যের মধ্যে ১০৭ জন সদস্য সামরিক বাহিনী গঠনের পক্ষে মত দিয়েছেন। সংখ্যালঘু সার্ব রাজনীতিকরা এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেন। সদ্য পাশ হওয়া আইনানুযায়ী দেশটি ৪ হাজার সদস্যের একটি সশস্ত্র নিরাপত্তা বাহিনী গড়ে তুলবে।

কসোভো পার্লামেন্টের স্পিকার কাদরি ভেজেলি আইন পাশ হওয়ার পর বলেন, আজ কসোবো নতুন এক যুগে প্রবেশ করলো। আজ আমরা সশস্ত্র বাহিনীর অধিকারী হলাম।

এ সময় কসোভোর আইনপ্রণেতারা একে অপরের সাথে কোলাকুলি করেন।

কসোভোর সংখ্যাগরিষ্ঠ আলবেনিয়ানরা এই আইন পাশের পর রাষ্ট্রীয় উৎসবের জন্য অপেক্ষা করছে। তারা মনে করছে, ২০০৮ সালে স্বাধীনতা ঘোষণার পর স্বাধীন জাতি হিসেবে তারা আরেকটি স্তম্ভ লাভ করলো।

কসোভোর অধিবাসী সেকেন্দার আরিফি বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, এখন আমরা বলতে পারবো কসোভো একটি রাষ্ট্র। কেননা সামরিক বাহিনী ব্যতীত কোনো রাষ্ট্র হয় না।

সার্বিয়ার প্রধানমন্ত্রী এ্যনা ব্রানবিক এই সিদ্ধান্তে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেছেন, কসোভোর সামরিক বাহিনীর গঠনের সিন্ধান্ত বলকান অঞ্চলের স্থিতিশীলতা নষ্ট করবে।

অবশ্য সার্বিয়া এখনও স্বাধীন কসোভোকে স্বীকার করে না।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কসোভোর সামরিক বাহিনী গঠনের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেছে। সাথে সাথে প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে কসোভোর সম্পর্ক উন্নয়নে আরও বেশি কাজ করার অঙ্গীকার করেছে।

অন্যদিকে কসোভোর এই সিদ্ধান্তে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে ন্যাটো। ন্যাটো প্রধান জেনস স্টোলেনবার্গ বলেছেন, ন্যাটো কসোভোর নিরাপত্তা বাহিনীর উন্নয়নকে সমর্থন করে। তবে পরিবর্তিত অবস্থায় কসোভোতে ন্যাটোর ভূমিকা কী হবে তা পুনর্বিবেচনা করবে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৮-১৯৯৯ সালে সার্বিয়ার সঙ্গে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর কসোভো স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে আবির্ভূত হওয়ার সময় থেকে ন্যাটোর শান্তি রক্ষী বাহিনী কসোভেতে নিয়োজিত আছে।

সূত্র : ডেইলি সাবাহ

পূর্ববর্তি সংবাদবিএনপি জামাতের কাছ থেকে অর্থ নিন, নৌকায় ভোট দিন : প্রধানমন্ত্রী
পরবর্তি সংবাদনির্বাচনের আগে পদোন্নতি পেলেন পুলিশের ২৬৮ এএসপি