হত্যার হুমকির পর নির্বাচন নিয়ে যা বললেন মুফতি মনির কাসেমী

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের নায়ারণগঞ্জ জেলা সভাপতি মুফতি মনির হোসাইন কাসেমী। অভিযোগ উঠেছে, প্রতীক বরাদ্দের পরপর তিনি এলাকায় গণসংযোগ শুরু করলেও প্রতিপক্ষের বাঁধার কারণে এখন আর তা সম্ভব হচ্ছে না। সর্বশেষ গতকাল তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়।

মুফতি মনির কাসেমী গণমাধ্যমকে জানান, গতকাল বেলা ২টা ৪০ মিনিটের দিকে প্রচারণা শেষে ভুইগড় রূপায়ন টাউনের গেটের সামনে অপেক্ষা করছিলেন তিনি। এ সময় ৩-৪টি মাইক্রোবাসে করে ২০-২৫ জন লোক এসে তাকে জীবননাশের হুমকি দেয়।

আজ ইসলাম টাইমসের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করলে পরিস্থির আরও অবনতি হয়েছে বলে জানান মুফতি মনির কাসেমী। তিনি বলেন, আজ আমি সারাদিন ঘর থেকে বের হতে পারিনি। কর্মীরাও বের হতে পারছে না। এখন (সন্ধ্যা ৬.২০ মি.) ফতুল্লা থানার ওসির নেতৃত্বে পুলিশের পাহারায় জেলা পুলিশ সুপারের কাছে যাচ্ছি। তিনি আমাকে নিয়ে যাচ্ছেন এবং বাসায় দিয়ে যাবেন।

এই জমিয়ত নেতা আরও জানান, তার বাড়ির সামনে কিছুক্ষণ পরপর ২০-২৫টি মোটর সাইকেল এসে টহল দিচ্ছে এবং তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করছে। বিভিন্ন ধরনের হুমকি-ধমকিও দিচ্ছে তারা।

ধানের শীষের নেতা-কর্মীদেরও তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে দিচ্ছে না। এ পর্যন্ত কয়েকজনকে পুলিশ গ্রেফতারও করেছে বলে অভিযোগ করেন এই নেতা।

মুফতি মনির কাসেমী আশঙ্কা করছেন, হয়তো তার সমর্থকদের ভোট কেন্দ্রে যেতেই দেয়া হবে না। তবে ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে যেতে পারলে ধানের শীষের বিজয় হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

তিনি জানান, শত প্রতিকূলতার মধ্যেও নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াবেন না। শেষ পর্যন্ত টিকতে পারবেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর প্রশ্নই আসে না। এটা আমানত। আমার দায়িত্ব। আমি আমানতের খেয়ানত করতে পারবো না।

পূর্ববর্তি সংবাদফুলপুরে ভীমরুলের কামড়ে আহত ১০ 
পরবর্তি সংবাদবান্দরবনের লামায় গাছ পড়ে শিশুর মৃত্যু