১৪ বছর চুপ ছিলাম, এবার সেদিনের অপমানের কথা বলবো: মাহী

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: বিকল্পধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য মাহী বি চৌধুরী এমপি চুপ না থেকে ১৪ বছর আগে বিএনপির করা অপমানের বিরুদ্ধে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ২০০৪ সালে বিএনপি থেকে পদত্যাগের পর প্রতিনিয়ত রাজনীতির শিষ্টাচার লঙ্ঘন করে তারা অশ্লীল ভাষায় একতরফাভাবে অভিযোগ করে গেছে। আমি তখন সংসদে থেকেও সে অভিযোগ খণ্ডন করার সুযোগ পাইনি। আজ ১৪ বছর পর সংসদে ফিরছি। অনেক দিন চুপ করে ছিলাম। এবার ৩০ জানুয়ারি সংসদে গিয়ে সেদিনের অপমানের কথা বলব।

রবিবার বিকল্পধারা থেকে নির্বাচিত দুই সংসদ সদস্যকে দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

উল্লেখ্য,২০০৪ সাল থেকে সংসদের বাইরে থাকলেও মাহী বি চৌধুরী টেলিভিশন টক শোতে নিয়মিত কথা বলেছেন। সেসব টক শোতে তিনি আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের সমালোচনার পাশাপাশি সাবেক রাষ্ট্রপতি বি চৌধুরীর সাথে বিএনপির আচরণ ও দূরত্বের বিষয়েও বারবার জবাবি বক্তব্য দিয়েছেন।

মাহী বলেন, ২০০২ সালের ২১ জুন রাষ্ট্রপতি হিসেবে পদত্যাগের পর এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে নিয়ে খালেদা জিয়া বলেছিলেন, ‘ষড়যন্ত্রের শেকড় উপড়ে ফেলেছি’। কিন্তু কী সেই ষড়যন্ত্র তা কখনও বলেননি। আমরা বলতে চাই, ষড়যন্ত্রের মূল নায়ক হিসেবে আপনি কী কী ভূমিকা রেখেছিলেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমি সংসদে দুই ঘণ্টা দাঁড়িয়ে মাননীয় স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চেয়েছিলাম কিন্তু আমাকে সে সুযোগ দেওয়া হয়নি। একটি শব্দ উচ্চারণও করতে দেওয়া হয়নি। তখন বি চৌধুরীর বিরুদ্ধে ‘বেইমানির অভিযোগ’ এনে মিথ্যাচার করেছিলেন বিএনপি নেতারা।

পদত্যাগের পরপর বি চৌধুরীর বাড়িতে হামলার ঘটনা সংসদে তুলতে চাইলেও সে সুযোগ দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এবার আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটে যোগ দিয়ে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে সংসদ সদস্য হন বিকল্পধারার মাহী বি চৌধুরী ও মেজর (অব.) আবদুল মান্নান।

পূর্ববর্তি সংবাদশরীয়তপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ যুবক নিহত, পুলিশ দাবি করেছে নিহতরা ডাকাত
পরবর্তি সংবাদআজও শ্রমিক বিক্ষোভের চেষ্টা, থমথমে আশুলিয়া