বিনামূল্যের সরকারি বই ২০০ টাকা করে বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: সরকারি বই বিক্রিয়ের অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। শিক্ষার্থীদের জন্য সরকারের দেওয়া বিনামূল্যের পাঠ্যবই জনপ্রতি ২০০ টাকা করে নিয়ে বিক্রি করেছেন কুমিল্লার স্কুলের এক প্রধান শিক্ষক। কুমিল্লার দেবিদ্বার পৌর এলাকার বড় আলমপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ওই প্রধান শিক্ষকের নাম মো. আমির হোসেন।

অভিযোগ উঠেছে, স্কুলের ওই প্রধান শিক্ষক ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত প্রায় ছয় শতাধিক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে জনপ্রতি ২০০ টাকা করে নিয়ে পাঠ্যবই বিক্রি করেছেন। অনেকে টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে শিক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষ থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দেন প্রধান শিক্ষক।

শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের অভিযোগ, প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে বইয়ের জন্য ২০০ টাকা করে নিয়েছেন প্রধান শিক্ষক আমির হোসেন। কেউ টাকা দিতে না পারলে শ্রেণিকক্ষ থেকে শিক্ষার্থীদের বের করে দেওয়ার হুমকি দেন তিনি। পরে বাধ্য হয়ে টাকা দিয়ে বই নিয়েছে অনেক শিক্ষার্থীর অভিভাবক।

এক ছাত্রীর বাবা রিকশাচালক আলমগীর হোসেন বলেন, ‘আমার মেয়ে বইয়ের জন্য ২০০ টাকা দিতে না পারায় তাকে স্কুল থেকে বের করে দেন প্রধান শিক্ষক। পরে ২০০ টাকা ফি দিয়ে মেয়ের বই নিয়েছি।’

আলমপুর গ্রামের চায়ের দোকানদার রুমুজা বেগম বলেন, ‘বই উৎসবের দিন বিদ্যালয়ে গিয়ে নাতনির জন্য বই চাইলে প্রধান শিক্ষক তার কাছে ২০০ টাকা দাবি করে। বলেন, “টাকা না দিলে বই পাওয়া যাবে না।” পরে অন্যের কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে স্কুল থেকে নাতনির জন্য বই নিয়েছি।’

এসব বিষয় জানতে চাইলে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. আমির হোসেন বলেন, ‘স্কুল পরিচালনা কমিটির নির্দেশে টাকা নেওয়া হয়েছে। কারো কাছ থেকে জোর করে টাকা নেওয়া হয়নি। তাছাড়া অভিভাবকরা খুশি হয়ে শিক্ষকদের চা-নাস্তা খাওয়ার জন্য টাকা দিয়েছে।’

স্কুল পরিচালানা কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার নুরুল ইসলাম বলেন, ‘টাকা আদায়ের কোনো নির্দেশ কমিটির পক্ষ থেকে কাউকে দেওয়া হয়নি। প্রধান শিক্ষক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ২০০ টাকা করে নিয়েছেন-এটা আমরা পরে জেনেছি।’

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রবীন্দ্র চাকমা বলেন, ‘টাকা নেওয়ার সত্যতা পেলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

পূর্ববর্তি সংবাদআমি কখনো বলিনি সংলাপ হবে : ওবায়দুল কাদের
পরবর্তি সংবাদপূর্ব তুর্কিস্তান : উইঘুর মুসলমানের হারানো মানচিত্র