৩৫ বছর ধরে বিনা বেতনে শিশুদের কুরআন শেখাচ্ছেন হাফেজ আবদুল হান্নান 

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: দেশ ও জাতির জন্য অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন কুরআনে প্রেমিক হাফেজ আবদুল হান্নান। দীর্ঘ ৩৫ বছর ধরে বিনা খরচে পবিত্র কুরআনুল কারিম পড়াচ্ছেন তিনি। কুষ্টিয়ার মিরপুর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের সুলতানপুর গ্রামে।৩৫ বছরে তাঁর অধীনে কুরআন শিখেছে অসংখ্য শিশু-কিশোর। বর্তমানে তাঁর তত্ত্বাবধানে প্রায় ১০ হাজার শিক্ষার্থী পবিত্র কুরআন সহিহভাবে পড়া শিখছে।

১৯৮৪ সালে নিজ বাড়ির আঙিনায় গ্রামের ছেলেমেয়েদের কুরআন পড়ানো শুরু করেন আব্দুল হান্নান। সময়ের ব্যবধানে তার কুরআন ক্লাসে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় সকালের এ কুরআন ক্লাসের জন্য ঘর নির্মাণ প্রয়োজন হয়ে পড়ে। পৈত্রিকসূত্রে পাওয়া বাড়ির পাশে রাস্তা সংলগ্ন ১ কাঠা জায়গায় ১৯৮৬ সালে গড়ে তোলেন একটি মকতব। এ ঘরেই দীর্ঘদিন চলতে থাকে কুরআন তালিমের কাজ।

৯ বছর পর ১৯৯৫ সালে তার বাবা আব্দুল আজিজ শেখ তাকে মকতব নির্মাণে আরো ১ কাঠা জমি দেন। হাফেজ আব্দুল হান্নানের কুরআন শিক্ষার এ কাজ এখন শুধু তার গ্রামেই নয় বরং পাশ্ববর্তী অনেক গ্রামেও তিনি ফ্রি কুরআন শেখার এ কাজ চালু করেন।

বর্তমানে প্রায় ১০ হাজার শিক্ষার্থী সকালবেলা তার তত্ত্বাবধানে পরিচালিত মকতবে কুরআন শিখছেন। প্রিয়নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের হাদিসের ওপর আমলকারী অনন্য ব্যক্তিত্ব হাফেজ আব্দুল হান্নান। নবীজি বলেছেন, তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ওই ব্যক্তি, যে নিজে কুরআন শিখে এবং অন্যকে শিক্ষা দেয়।

নবীজির এ হাদিস থেকে প্রাণিত হয়ে বাংলাদেশের সীমান্তপল্লী কুষ্টিয়ায় কুরআনের বাগান গড়ে তুলেছেন হাফেজ আব্দুল হান্নান। কুরআন শিখতে এসে যেসব শিক্ষার্থীর পবিত্র কুরআনের কপি কেনার সামর্থ্য থাকে না, তাদেরকে বিনামূল্যে পবিত্র কুরআনের কপি সরবরাহের ব্যবস্থা করেন হাফেজ আব্দুল হান্নান।

কুরআন শেখানোর কারিগর হাফেজ আব্দুল হান্নান কুরআন শেখানো ও এর তত্ত্বাবধানের জন্য কোনো বেতন গ্রহণ করেন না। বরং একটি মসজিদে ইমামতি ও ২ বিঘা জমি চাষাবাদেই চলে তার সংসার। হাফেজ আব্দুল হান্নানের এ উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে।

পূর্ববর্তি সংবাদআফগানিস্তানে বন্যায় শিশুসহ নিহত ২০
পরবর্তি সংবাদঅমুসলিম নারীকে বিয়ে করা যাবে?