মেননের সংসদ সদস্য পদ বাতিল করে গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে : হেফাজতে ইসলাম

ইবরাহিম ফুয়াদ ।। হাটহাজারী থেকে

সংসদে ইসলাম-বিদ্ধেষী বক্তব্য, মাদরাসা শিক্ষাকে বিষবৃক্ষ, ইসলামী অনুশাসনকে ‘মোল্লাতন্ত্র’ ও আল্লামা আহমদ শফিসহ আলেম-সমাজকে কটাক্ষ করায় প্রখ্যাত বামনেতা রাশেদ খান মেননকে অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের হাটহাজারী উপজেলা শাখা।

আজ ৭ ই মার্চ বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় হাটহাজারী মাদরাসার মুহাদ্দিস আল্লামা আহমদ দীদার কাসেমীর সভাপতিত্বে ডাকবাংলো চত্বরে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় ৷

সমাবেশে বক্তারা বলেন, হক্কানী ওলামায়ে কেরাম কুরআন হাদীসের অনুশাসনের কথা উম্মতের মাঝে প্রচার করেন ৷ সংখ্যাগরিষ্ট মুসলমানের দেশের জাতীয় সংসদে রাশেদ খান মেনন কুরআন সুন্নাহর অনুশাসনকে ‘মোল্লাতন্ত্র’ বলে অভিহিত করে প্রকাশ্যে কুরআন-হাদীসের বিরুদ্ধাচারণ ও অবমাননা করেছে ৷ ৯০% মুসলমানের দেশে কুরআন সুন্নাহর বিষয়ে অবমানকর বক্তব্য দিয়ে মেনন সংসদ সদস্য থাকতে পারে না ৷ অনতিবিলম্বে তার সংসদ সদস্য পদ বাতিল করতঃ গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে ৷

ইসলামের বিধান অনুযায়ী বিশ্ব শান্তির অগ্রদূত হযরত মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাকে সর্বশেষ নবী ও রাসুল হিসেবে অস্বীকারকারী কাদিয়ানীরা কাফের ৷ আহমদিয়া মুসলিম জামাত বলে কাদিয়ানীদের পক্ষে বক্তব্য দিয়ে মেনন নিজেকে কাদিয়ানীদের দোসর বলে প্রমাণ করেছে ৷ সর্বস্বীকৃত কাফের কাদিয়ানীদের পক্ষপাতিত্ব করে মেনন নিজেকে কাদিয়ানী সাবস্ত করেছেন ৷ আশেকে রাসুলের এই বাংলায় কাদিয়ানী এবং তাদের দোসরদের কোন জায়গা হবে না ৷ মেনন তার বক্তব্য প্রত্যাহার করে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে ৷

বক্তাগণ আরো বলেন,জাতীয় সংসদে আইন পাশ করে বর্তমান সরকার কওমী সনদের স্বীকৃতি দিয়েছেন ৷ মেনন তার বক্তব্যে কওমী স্বীকৃতি এবং কওমী শিক্ষাকে বিষবৃক্ষ বলে সরকার এবং সংসদকে অবমাননা করে কার্যত রাষ্ট্রদ্রোহিতা করেছে ৷ রাষ্ট্রদ্রোহী আইনে তার বিচার করতে হবে ৷ তার এ বক্তব্য সংবিধান, সংসদ, সরকার ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি বৃদ্ধাঙুলি প্রদর্শনের শামিল। কওমী মাদরাসা এদেশের সর্বস্থতের মুসলমানদের প্রাণের প্রতিষ্ঠান ৷ কওমী মাদরাসার সাথে এদেশের মানুষের আত্মার সম্পর্ক রয়েছে ৷ দুর্নীতি, মাদকমুক্ত আদর্শ সমাজ বিনির্মানে কওমী মাদরাসার কোন তুলনা হয় না ৷ সরকারী কোন দান-অনুদান ছাড়া আল্লাহর রহমত এবং জনসাধারণের আর্থিক সহযোগীতায় পরিচালিত কওমি মাদরাসা সমূহ দেশ ও জাতিকে হাজার হাজার আলেম, হাফেজ, মুফতী, মুহাদ্দিস, খতীব, দ্বীনের দা’য়ী উপহার দিয়েছে ৷ কওমী শিক্ষা নিয়ে মেননের বক্তব্যে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে ৷ এর জন্য অবশ্যই তাকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে ৷

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশকে মোল্লাতন্ত্রের পৃষ্ঠপোষক বলে মেনন অমার্জনীয় অপরাধ করেছে ৷ হেফাজতে ইসলাম মুসলমানদের ঈমান-আক্বিদা রক্ষার সংগ্রামে অরাজনৈতিক সর্ববৃহৎ ধর্মীয় সংগঠন। হেফাজতে ইসলাম মহান আল্লাহ তা’আলা, মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা. ও হযরাত সাহাবায়ে কেরাম এর শান-মান মর্যাদা রক্ষায় কাজ করে ৷ প্রতিষ্ঠাকাল থেকে ইসলাম বিরোধী অপশক্তি এবং বিশ্বব্যাপী ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে ইহুদি খ্রিস্টানদের চলমান ষড়যন্ত্রের মোকাবেলায় হেফাজতে ইসলাম অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা পালন করে ৷ হেফাজত এদেশের সর্বস্থরের তৌহিদী জনতার প্রাণের সংগঠন ৷হেফাজত নিয়ে বিরূপ মন্তব্য এদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমান মেনে নেবে না ৷

প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে মিছিলটি বাস স্টেশন হয়ে রাঙ্গামাটি রোড ও কাচারী রোড প্রদক্ষিণ করে পূণরায় ডাক বাংলোতে এসে দুআর মাধ্যমে সমাপ্ত হয় ৷

সমাবেশে অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন,হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, হাটহাজারি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা নাসির উদ্দিন মুনির, হাটহাজারি ওলামা পরিষদ সেক্রেটারি মাওলানা জাফর আহমদ, আল-হুদা মহিলা মাদরাসার নির্বাহী পরিচালক মাওলানা মীর ইদরীস নদবী,মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়জী, মাওলানা আবু আহমদ, আলহাজ মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ, মাওলানা এমরান সিকদার প্রমুখ ৷

পূর্ববর্তি সংবাদমিয়ানমারে মুসলিমদের প্রতি ঘৃণা করতে শেখানো হচ্ছে : জাতিসংঘ
পরবর্তি সংবাদশিবমেলায় ফেলে যাওয়া মাকে অবশেষে ফিরিয়ে নিলো ছেলে