ব্রিটেনে মসজিদের নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন

আবরার আবুদল্লাহ ।।

নিউজিল্যান্ডের মসজিদে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার পরদিনই লন্ডনের এক মসজিদে হাতুড়ি হামলা হয়। তার একদিন না যেতেই ফ্রান্সের মসজিদে গাড়ি চালিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটে।  ইউরোপে ধারাবাহিক এই মুসলিম বিদ্বেষী আক্রমণের প্রেক্ষিতে ব্রিটেনের মসজিদগুলোর নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন করেছে দেশটির মুসলিম কমিউনিটির নেতারা।

দ্য মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেনের সেক্রেটারি জেনারেল হারুন খান জানিয়েছেন, তারা স্থানীয় প্রশাসনকে তাদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন এবং দ্রুততম সময়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর চিঠি পাঠিয়ে তাদের উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার কথা জানাবেন। তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে মসজিদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকারের বরাদ্দ বাড়ানোরও আবেদন করবেন।

তিনি বলেন, প্রতিদিনই আমরা শঙ্কা বোধ করছি, বিশেষত শুক্রবার –যে দিন মসজিদে বিপুল সংখ্যক মানুষ একত্র হয়। এখানে হামলার আশঙ্কা খুবই বেশি। বিশেষত অতি ডানপন্থীদের উত্থানের পর সমগ্র ইউরোপে যে পরিবেশ তৈরি হয়েছে তাতে আমরা চিন্তিত।

হারুন খান আরও বলেন, মসজিদের নিরাপত্তা বরাদ্দ বৃদ্ধির এই দাবি আমরা দীর্ঘদিন যাবত করে আসছি। ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তায় ইহুদি সম্প্রদায়সহ অন্যান্যরা যে হারে বাজেট পান আমাদেরও সেই হারে বরাদ্দ দেওয়া হোক।

ব্রিটিনের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে সম্প্রতি ইহুদি সম্প্রদায়ের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা বৃদ্ধির জন্য অর্থায়ন বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। বর্তমানে ইহুদি কমিউনিটি তাদের ৪০০ সিনাগগ ও ১৫০টি ধর্মীয় স্কুলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্রিটিশ সরকারের পক্ষ থেকে ১৪ মিলিয়ন পাউন্ড পেয়ে থাকে। অর্থাৎ প্রতিষ্ঠান প্রতি বাজেট করা হয় ২৫ হাজার পাউন্ড।

বিপরীতে ব্রিটেনের ৪৮ হাজার মুসলিম ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তায় সরকার গত ৩ বছরে দিয়েছে মাত্র ২.৪ মিলিয়ন পাউন্ড। এতে প্রতিষ্ঠান প্রতি বাজেট ৫০০ পাউন্ডেরও কম হয়।

হারুন খান মনে করেন, ইউরোপজুড়ে মুসলমানের উপর যে পরিমাণ আক্রমণ বেড়েছে তাতে মসজিদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকারের অর্থায়ন আরও বৃদ্ধি করা দরকার।

অবশ্য ব্রিটিশ গণমাধ্যমগুলো বলছে, সরকার ইতিমধ্যেই মসজিদের নিরাপত্তা বৃদ্ধির উদ্যোগ নিয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ মসজিদগুলোতে নিরাপত্তা বাহিনীকেও মোতায়েন করা হয়েছে।

সূত্র : এমবিসি

পূর্ববর্তি সংবাদএকজন মিয়াজীর দরকার : ইসহাক ওবায়দী
পরবর্তি সংবাদবুধবার সারাদেশে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের আহ্বান শিক্ষার্থীদের