ফাঁটা পাইপ ও নাইমের ‍প্রতি ভালোবাসা

সাদ আবদুল্লাহ মামুন ।।

ব্যথাভরা মানুষের মনে ফাঁটা পাইপের প্রতি ক্ষোভ ও ধিক্কার আর একরাশ ভালোবাসা নাইমের প্রতি। হাসিমাখা নাইমের ছবিটা এখন সামাজিক মাধ্যমে ঘুরছে। সবার মনে নাইমের প্রতি কৃতজ্ঞতা। বিপদের সময় সাধ্যমতো চেষ্টা কীভাবে করতে হয় দেখিয়ে দিয়েছে নাইম।

ঢাকার বনানীর এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় একটি ছবিতে দেখা যায়, আগুন নেভানোর কাজে ব্যবহৃত একটি পাইপের ফাটা অংশ দুহাতে চেপে ধরে আছে একটি শিশু।

ছেলেটির নাম নাঈম ইসলাম। রাজধানীর কড়াইল বস্তিতে বাবা-মায়ের সঙ্গে থাকে সে। নাঈমের বাবা একজন ডাব বিক্রেতা, আর মা কর্মজীবী।

নাঈম জানায়, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার আগে মা নাজমা বেগম টিভি ছাড়তে বলেন তাকে। টিভিতে আগুনের ঘটনা দেখে দৌড়ে এফআর টাওয়ারের সামনের সড়কে উপস্থিত হয় সে। তারপর সেখানে পানির পাইপ ফাটা দেখে শক্ত করে দুই হাত দিয়ে চেপে ধরে রাখে। ফাটা পাইপ দিয়ে পানি যেন পড়ে না যায়।

রাজধানীর অভিজাত এলাকা বনানীর কামাল আতাতুর্ক এভিনিউয়ে দাউদাউ করা ভয়ঙ্কর আগুনে পুড়েছে বহুতল ভবন এফআর টাওয়ার। বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১টার দিকে লাগা টানা ছয় ঘণ্টার দানবরূপী আগুনে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

Naim-1.jpg

ভয়াবহ ওই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এফআর টাওয়ারে আটকা পড়া মানুষের উদ্বেগ-আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠে সেখানকার পরিবেশ। ধোঁয়ার কুণ্ডলীর কারণে আকাশ দেখা যাচ্ছিল না। এরই মধ্যে সেখানে উপস্থিত হন ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। পানি দিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করতে থাকেন তারা। কিন্তু পানি দেওয়ার সেই পাইপ ফুটো থাকায় কাজে ব্যঘাত ঘটে। বিষয়টি চোখে পড়ায় ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের সহযোগিতা করতে পলিথিন দিয়ে সেই ফুটো বন্ধ করার চেষ্টা করে নাঈম নামে এক শিশু। তবুও ফুটো দিয়ে পানি বের হতে থাকলে পাইপের সেই পলিথিন জড়ানো স্থানে হাত ও পা দিয়ে শক্ত করে ধরে থাকে সে, যাতে এখান দিয়ে কোনো পানি না বের হয়।

পূর্ববর্তি সংবাদসম্ভাবনা ও ফলাফল (২য় পর্ব): মাওলানা আবু তাহের মিসবাহ
পরবর্তি সংবাদফরিদগঞ্জে ৬ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই