বেফাকের প্রশ্নপত্র ফাঁস : আইনের হাতে তুলে দেওয়া হবে অপরাধীদের

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ বিষয়ে তদন্তের জন্য উচ্চতর কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ কওমি মাদরাসার শিক্ষাবোর্ড বেফাক। তদন্ত কমিটি বেফাকের প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ তদন্তের পাশাপাশি আগামীতে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে প্রস্তাবনা পেশ করবে।

বৈঠকে প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ারও সিদ্ধান্ত হয়েছে।

বৈঠক শেষে ইসলাম টাইমসকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন বেফাকের সহ-সভাপতি ও জামিয়া গহরপুরের প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা মুসলেহুদ্দীন রাজু।

আজ ঢাকার যাত্রাবাড়ীতে বেফাক অফিসে বোর্ডের সিনিয়র সহ-সভাপতি আল্লামা আশরাফ আলীর সভাপতিত্বে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

আল্লামা আশরাফ আলীকে আহবায়ক করে গঠিত কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, সহ-সভাপতি আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ, আল্লামা নুর হোসাইন কাসেমী, মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাস, মাওলানা সাজিদুর রহমান, মাওলানা মুসলেহুদ্দিন রাজু, মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা মাহফুজুল হক ও মুফতি নুরুল আমিন।

বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্তগুলো হলো, ১. প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা তদন্তের জন্য উচ্চতর কমিটি গঠন, ২. সকল অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া, ৩. গত ১৩ এপ্রিল (শনিবার) বেফাকের পক্ষ থেকে ফজিলত ২য় বর্ষের (মেশকাত জামাত) পরীক্ষা বাতিল করার পরও চট্রগ্রামের হাটহাজারী মাদরাসাসহ দেশের যেসব মাদরাসায় ওই শ্রেণীর পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে তা বাতিল বলে গণ্য হবে।

উল্লেখ্য, ৮ এপ্রিল থেকে সারাদেশে বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের ৪২তম কেন্দ্রীয় পরীক্ষা শুরু হয়। পরে প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ ওঠে। ফলে ফজিলত মারহালার সকল পরীক্ষা বাতিল করে বেফাক কর্তৃপক্ষ। আগামী ২৩ এপ্রিল থেকে ওই শ্রেণীর পরীক্ষা পুনরায় শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

পূর্ববর্তি সংবাদআজ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সিসিকে ‘হোল্ডিং ট্যাক্স পক্ষ’
পরবর্তি সংবাদসু-প্রভাত বাস: চলাচল বিষয়ে ৩০ দিনে নিষ্পত্তির নির্দেশ হাইকোর্টের