শ্রমিকেরা ওয়াসার পানি জগভরে খায়, কেউ অসুস্থ হয়নি: মন্ত্রী

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: ওয়াসার পানির বিশুদ্ধতা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বললেন, পাইপলাইনের পানি কে খাবে কে খাবে না সেটি তার ঝুঁকি নেওয়ার উপর নির্ভর করবে।

তিনি ওয়াসার পাইপলাইনের পানি খাওয়ার উদাহরণ টেনে বলেন, আমাদের এখানে নির্মাণ শ্রমিকেরা নিয়মিত, আমি এক জায়গায় একবছর পর্যন্ত, সেখানে আমি মাঝে মধ্যে যাই, সেখানে দেখি পাইপলাইনের পানি জগভরে নেয় এবং খায়। এক বছর পর্যন্ত তারা অসুস্থ হয়নি। ঘটনাটা হলো কে খাবে কে খাবে না- এটা ডিপেন্ড করবে আপনি কতটুকু রিস্ক নেবেন।

অগ্নিনির্বাপণ প্রতিরোধে করণীয় নির্ধারণের লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) সচিবালয়ে সভার শুরুতে স্থানীয় সরকার বিভাগ মন্ত্রণালয়ের অধীন সংস্থা ঢাকা ওয়াসার পানির প্রসঙ্গটি নিয়ে কথা বলেন।

ওয়াসার এমডি তাকসিম এ খান গত ২০ এপ্রিল বলেছিলেন, ঢাকা ওয়াসার পানি শতভাগ সুপেয়। সংস্থার এমডির এমন মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে ওয়াসার পানি দিয়ে শরবত বানিয়ে ২৩ এপ্রিল এসেছিলেন জুরাইনের কিছু বাসিন্দা। কিন্তু এমডিকে শরবত খাওয়াতে পারেননি তারা।

এ বিষয়টি নিয়ে আলোচনার মধ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগের মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, ঢাকা ওয়াসা নিয়ে ইদানীং বেশ কথাবার্তা চলছে। ‘আমি এখানে কথা বলি, পানির ৯৯ পার্সেন্ট ব্যবহার হয় ড্রিংকেবল ওয়াটার না, নন-ড্রিংকেবল ওয়াটার হিসেব। ৯৯ পার্সেন্ট পানি ব্যবহার হয় কিসে- ধোয়ামোছার কাজে, গোসল করা ইত্যাদি কাজে। আর ওয়ান পার্সেন্ট পানি সরবরাহ করা হয় খাওয়ার জন্য।’

আলোচনা-সমালোচনা সরকারের সংস্থাগুলোকে সহজভাবে আমলে নেওয়া উচিত জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, তাহলে আমাদের আর কিছু করণীয় আছে কিনা, কোথায় কোন ভুলত্রুটি আছে কিনা; তাতে করে আমরা সংশোধন ও সচেতন হতে পারবো।

পূর্ববর্তি সংবাদপটুয়াখালীর দুমকিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ১ জন নিহত
পরবর্তি সংবাদকৃত্রিম পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছেন গ্রিনলাইরে বাসচাপায় পা হারানো রাসেল