বিএনপির আরও কয়েক নেতার শপথ নেয়ার গুঞ্জন

ইসলাম টাইমস ডেস্ক:  আজ-কালের মধ্যে বিএনপির আরও কয়েক নেতার শপথ নেয়ার গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।  দলীয় একটি সূত্রে জানা যায়, হাইকমান্ডের সিদ্ধান্ত বা অনুরোধ উপেক্ষা করে আরও কয়েকজন নেতা শপথ নিতে পারেন।

গণফোরামের দুই প্রার্থীর শপথের পর বিএনপির একজনও শপথ নিয়েছেন। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শপথ নেয়ায় বিরোধী শিবিরে অস্বস্তি সৃষ্টি হয়েছে।

তবে শপথ নেয়ার ক্ষেত্রে সরকারের চাপ রয়েছে বলে মনে করছেন বিএনপির অনেকে। যদিও সরকার তা সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেছে।

দলীয় সূত্রে আরও জানা গেছে, বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বিএনপির নীতিনির্ধারকরা অনেকটা বিব্রত ও অস্বস্তিতে রয়েছে। সার্বিক পরিস্থিতি সামাল দিতে নড়েচড়ে বসেছেন দলটির হাইকমান্ড।

প্রসঙ্গত, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট মাত্র আটটি আসনে জয়লাভ করে। গণফোরাম থেকে নির্বাচিত দু’জন এমপি- মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া-কমলগঞ্জ) আসনের সুলতান মোহাম্মদ মনসুর ও সিলেট-২ আসনের মোকাব্বির খান ইতিমধ্যে শপথ নিয়েছেন।

অনেকেই মনে করেন, এর পেছনে গণফোরামের শীর্ষ নেতাদের ইন্ধন রয়েছে।

ঐক্যফ্রন্ট গঠনের পর থেকেই ড. কামাল হোসেনের ভূমিকা নিয়ে বিএনপির অনেকেই সন্দেহ প্রকাশ করেন। বিশেষ করে নির্বাচনের আগের দিন ভোট কারচুপির অভিযোগ উঠলেও ফ্রন্টের শীর্ষ নেতা হয়ে তিনি এর প্রতিবাদে কোনো উদ্যোগই নেননি।

উল্টো নির্বাচনের দিন নিজের ভোট দিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, এখন পর্যন্ত ভোট মোটামুটি সুষ্ঠু হয়েছে। নির্বাচনে যাওয়া, শেষ পর্যন্ত বিএনপিকে নির্বাচনে রাখা এবং গণফোরামের দুই এমপির শপথের বিষয়টি একই সূত্রে গাঁথা বলেও তারা মনে করেন।

বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের অনেক নেতার অভিযোগ, শপথ নেয়ার পর সুলতান মনসুরকে বহিষ্কার করেই দায়িত্ব শেষ করে গণফোরাম।

কিন্তু তার বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে স্পিকার বা নির্বাচন কমিশনে কোনো চিঠি দেয়া হয়নি। মনসুরকে লোক দেখানো বহিষ্কার করা হলেও মোকাব্বিরের ক্ষেত্রে সেটাও করা হয়নি। শপথ নেয়ার পর শোকজ করেই দায়িত্ব শেষ করেন গণফোরামের নেতারা।

পূর্ববর্তি সংবাদদেশের বিভিন্ন জায়গায় বৃষ্টির সম্ভাবনা, শিলাবৃষ্টির আশঙ্কা
পরবর্তি সংবাদযুক্তরাষ্ট্রে ইহুদি উপাসনালয়ে হামলা, নিহত ১