দ্বীনি দাওয়াত : মাওলানা ইলয়াস কান্দলভী এবং দাওয়াত ও তাবলিগ বিষয়ক অনবদ্য গ্রন্থ

ওলিউর রহমান ।।

হযরত মাওলানা ইলিয়াস আওর উনকি দ্বিনী দাওয়াত। গত শতকের বিশিষ্ট চিন্তাবিদ, ঐতিহাসিক এবংল লেখক আল্লামা আবুল হাসান আলী নদভী রহ. রচিত দাওয়াত ও তাবলিগ বিষয়ক একটি অনবদ্য গ্রন্থ।

দাওয়াত ও তাবলিগের ক্রমধারা ইসলামের সূচনালগ্ন থেকে অব্যাহত থাকলেও বর্তমানে বিশ্বব্যাপী পরিচিত প্রচলিত ধারার দাওয়াতী কার্যক্রম শুরু করেন মাওলানা ইলিয়াস কান্দলভী রহ.। মাওলানা ইলিয়াস কান্দলভীর ইখলাস ও লিল্লাহিয়্যাতের বরকতে বে তলব উম্মতের মাঝে দাওয়াতের কাজ ছড়িয়ে পড়ে পূর্ব-পশ্চিম সারা বিশ্বেই।

আল্লামা আবুল হাসান আলী নদভী দীর্ঘদিন মাওলানা ইলিয়াস কান্দলভীর সোহবত পেয়েছেন। আঁধারে নিমজ্জিত উম্মতকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনার জন্য মাওলানা ইলিয়াস কান্দলভীর কুরবানী ও মুজাহাদা তিনি খুব গভীরভাবে দেখেছেন। আল্লামা নদবী মাওলানা ইলিয়াস কান্দলভীর সাথে অনেক দাওয়াতি সফর করেছেন। তাবলীগ জামাতের সূচনা, প্রেক্ষাপট, আমল, উসূল ও তরিকা সম্পর্কে তিনি পূর্ণ জ্ঞাত ছিলেন। আল্লামা নদভী জীবনভর দাওয়াতের মেহনতের সাথে যুক্ত ছিলেন।

মাওলানা ইলিয়াস কান্দলভীর মেহনত ও কর্মপদ্ধতি, তার জীবনী ও কুরবানী,  তাবলীগ জামাতের সূচনা ও ক্রমবর্ধমান সম্প্রসারণ, এর উসূল ও আদাব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়ে দ্বীনি দাওয়াত গ্রন্থটিতে। তাবলীগ জামাতের কিছু আমল নিয়ে বিভিন্ন জনের নানা রকম সংশয়ের বিষয়েও গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করা হয়েছে এ মূল্যবান গ্রন্থটিতে।

দাওয়াত ও তাবলিগের মেহনতে যারা সময় ব্যয় করেন তারা এই গ্রন্থটিকে গুরুত্বসহকারে পাঠ করেন। সাধারণভাবে দাওয়াতের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীতা এবং তাকাযা সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা নিতেও উলামায়ে কেরাম এই বইটি পড়তে উৎসাহিত করেন।

মূল্যবান এ গ্রন্থটি বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে। ‘দ্বীনি দাওয়াত গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা’ নামে বাংলাতেও এর অনুবাদ হয়েছে।

পূর্ববর্তি সংবাদ‘চরম লজ্জার কথা যে, মা-বাবা এবং শিক্ষকরাই শিক্ষার্থীদেরকে নকল সাপ্লাই করে’
পরবর্তি সংবাদ‘ইসির আচরণ বিধির ব্যাখ্যায় স্ববিরোধিতা আছে, আমি ব্যক্তিগতভাবে সরকারী সুবিধাভোগী না’