বিবাড়িয়ায় মাদরাসা ছাত্রদের ওপর কাদিয়ানিদের হামলা, বিভিন্ন মহলের বিবৃতি

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: বিবাড়িয়ার জামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসার ছাত্রদের ওপর কাদিয়ানিরা সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে। এ হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা এবং দোষীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন উলামায়ে কেরামসহ দেশের বিভিন্ন দল ও সংগঠন।

কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড-বেফাক

আজ আজ বুধবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে মাদরাসা ছাত্রদের উপর কাদিয়ানীদের এ হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা এবং দোষীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের নেতৃবৃন্দ। বেফাকের অফিসে আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমীর সভাপতিত্বে এক জরুরী বৈঠকে নেতৃবৃৃন্দ এ দাবি জানান।

বৈঠকে নেতৃবৃন্দ বলেন, মাদরাসা ‘দখলে’র উদ্দেশ্যে ইসলাম, মুসলমান ও নবীর দুশমন কাদিয়ানীরা ছাত্র ও ওলামায়ে কেরামের উপর যে ন্যাক্কারজনক হামলা চালিয়েছে, তা কোন ভাবেই বরদাশত করা যায় না।

সরকারের প্রতি দাবি জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, এ অমানবিক হামলার দায়ে জড়িত সন্ত্রাসী কাদিয়ানীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার ও আইনের আওতায় না আনলে দেশব্যাপী আন্দোলনে তৌহিদী জনতা ঝাঁপিয়ে পড়তে বাধ্য হবে। দেশের শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে এবং ইসলাম ও মুসলমানের ঈমান আকিদা হেফাজতের স্বার্থে অবিলম্বে কাদিয়ানীদেরকে রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণা করতে হবে।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস

সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে কাদিয়ানীদের ন্যাক্কারজনক হামলার তীব্র নিন্দা ও কাদিয়ানিদের সরকারিভাবে অমুসলিম ঘোষনার দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা ইসমাঈল নূরপুরী, সিনিয়র নায়েবে আমীর মাওলানা যোবায়ের আহমদ আনসারী ও মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক।

নেতৃবৃন্দ বলেন, গতকাল বি-বাড়ীয়ায় মাদরাসার ছাত্রদের উপর মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে শেষ নবী হিসেবে অস্বীকারকারী কাদিয়ানী সম্প্রদায় হামলা করে যে ন্যাক্কারজনক ঘটনার অবতারণা করেছে তা কোনোভাবে সহ্য করা যায় না। এ হামলার সঙ্গে কাদিয়ানী সম্প্রদায়ের যারাই জড়িত তাদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি দিতে হবে।

আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী

এ দিকে এক বিবৃতিতে কাদিয়ানী সন্ত্রাসী কর্তৃক নিরিহ ছাত্রদের ওপর হামলার এ ঘটনাকে চরম ধৃষ্টতা উল্লেখ করে এর তীব্র নিন্দা ও কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব ও হাটহাজারী মাদরাসার সহযোগী পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, মাদরাসার ছাত্রদের উপর কাদিয়ানীদের হামলার ঘটনা বরদাশত করা হবে না। অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা চালিয়ে মাদরাসার ছাত্রদেরকে রক্তাক্ত করে চরম দৃষ্টতা আর দুঃসাহস দেখিয়াছে কাফের কাদিয়ানীরা।

তিনি বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে সুশৃঙ্খলভাবে আকিদায়ে খতমে নবুওয়াত নিয়ে দেশব্যাপী শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করে আসছি। আমাদের আন্দোলনে কখনো কোন ধরনে বিশৃঙ্খলা ভাংচুর হয়নি।কাফের কাদিয়ানীরা বিনা উস্কানীতে কওমী মাদরাসার নিরিহ ছাত্র ও আলেমদের উপর হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত করে ইতিহাসে একটি কালো অধ্যায়ের সূচনা করেছে।

৯০% মুসলিম অধ্যুষিত দেশে গুটিকয়েক কাদিয়ানী মাদরাসায় হামলা চালিয়ে কোটি কোটি নবীপ্রেমিক তৌহিদী জনতার কলিজায় আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে এ ঘটনার যথাযথ বিচার না হলে পুরো দেশ জুড়ে প্রতিবাদী আন্দোলনের দাবানল জ্বলে উঠতে পারে। এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে সরকারকেই এর দায়ভার বহন করতে হবে।

অনতিবিলম্বে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে খতমে নবুওয়াত মাদরাসায় হামলাকারী কাদিয়ানী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করত: দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং হামলায় হতাহতদের সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা করে কাদিয়ানীদেরকে রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণা করা না হলে আকিদায়ে খতমে নবুওয়াত রক্ষায় এদেশের লক্ষ কোটি তৌহিদী জনতা কাদিয়ানীদেরকে রাষ্ট্রীয়ভাবে অমুসলিম ঘোষণার জন্য দেশব্যাপী দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে বাধ্য হবে বলে হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন হেফাজত মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

আল্লামা নুরুল ইসলাম

সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত আরেক বিবৃতিতে মাদ্রাসার ছাত্রদের উপর কাদিয়ানী সম্প্রদায় কর্তৃক এ হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক মজলিসে তাহাফফুজে খতমে নবুওয়াত বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি জেনারেল আল্লামা নুরুল ইসলাম।

সামাজিক গণমাধ্যমে দেওয়া এক নিন্দা বিবৃতিতে তিনি বলেন, গতকাল (১৫ই জানুয়ারি) মঙ্গলবার বাদ এশা বি’বাড়িয়ায় নবীর (স.) দুশমন কাদিয়ানী গোষ্ঠী ছাত্র ও ওলামায়ে কেরামের উপর যে ন্যাক্কারজনক হামলা চালিয়েছে, তা কোন ভাবেই বরদাশ্ত করা যায় না।

বাংলাদেশ সরকারের প্রতি দাবি জানিয়ে আল্লামা নুরুল ইসলাম বলেন, অনতিবিলম্বে মাদ্রাসার ছাত্রদের উপরে এই অমানবিক অত্যাচার এর দায়ে কাদিয়ানী সম্প্রদায়ের দোষী সদস্যগণকে উপযুক্ত শাস্তির আওতায় না আনলে দেশব্যাপী আন্দোলনে তৌহিদী জনতা ঝাঁপিয়ে পড়তে বাধ্য হবে। যা কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে না।

তিনি আরো বলেন, যদি বাংলাদেশ সরকার এই বিষয়ে যথাযথ ভূমিকা রাখতে বিলম্ব করে, তাহলে তৌহিদী জনতার আন্দোলনে দেশ অচল হয়ে যেতে পারে। তিনি আহত ছাত্রদের জন্য সুস্বাস্থ্য কামনা করেন এবং মিডিয়া ও প্রশাসনকে সত্য ঘটনা যাচাই পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারকে সহায়তা করতে আহ্বান জানান।

পূর্ববর্তি সংবাদঋণের টাকা শোধে ব্যর্থ, মেয়েকে মহাজনের হাতে তুলে দিলেন বাবা
পরবর্তি সংবাদআবারও সহিংসতা চালালে হাফতারকে কঠিন শিক্ষা দেয়া হবে: এরদোগান