মুসলমানদের নীরবতার সুযোগে শত্রুরা পবিত্র কাবাকেও লক্ষ্য বানাবে: ‍ফিলিস্তিন ইস্যুতে এরদোগান

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: মুসলমানদের নীরবতার সুযোগে শত্রুরা পবিত্র কাবাকেও লক্ষ্য বানাবে বলে মন্তব্য করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান। খবর আল-জাজির‘র।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প উত্থাপিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি চুক্তির ব্যাপারে নীরব থাকায় আরব বিশ্ব এবং মুসলিম নেতাদের তীব্র সমালোচনা করার সময় গতকাল শনিবার এ মন্তব্য করেন তিনি।

এ সময় মুসলিম বিশ্বের নেতাদের উদ্দেশে এরদোগান বলেন, আমরা যদি এখন আল-আকসা মসজিদকে রক্ষা করতে না পারি, তাহলে ইসলামের শত্রুরা ভবিষ্যতে পবিত্র কাবাকে লক্ষ্য বানাবে। আর তখন আমরা তাদেরকে ঠেকাতে পারব না।

গত মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) হোয়াইট হাউজে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বিনয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে বৈঠকের পর কথিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা তুলে ধরেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ট্রাম্প উত্থাপিত ‘শান্তি পরিকল্পনা’য় ঐতিহাসিক জেরুজালেম আল-কুদস শহরকে ইসরায়েলি ভূখণ্ডের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আর নিজেদের মাতৃভূমিতে ফিরে যাওয়ার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসরত ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের।

ট্রাম্প উত্থাপিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনার ব্যাপারে নিজের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) এক বার্তায় এরদোগান বলেছেন, ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড দখলের লক্ষ্যে ট্রাম্প এই পরিকল্পনা করেছেন। তার এই পরিকল্পনা আমরা কখনোই মেনে নেব না।

এরপর তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, জেরুজালেম ও ফিলিস্তিনিদের ভাগ্য পুরোপুরি ইসরায়েলের নখদর্পনে ছেড়ে দেওয়াটা হবে সর্বনিকৃষ্ট কাজ হবে। ইহুদিদের সঙ্গে কোনো ধরনের সমস্যা না থাকলেও তুরস্কের অবস্থান সবসময় ইসরায়েলের অত্যাচারী নীতির বিরুদ্ধে। কারণ ইসরায়েলের লক্ষ্যই ফিলিস্তিনিদের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়া।

পূর্ববর্তি সংবাদকুমিল্লা সরকারি কলেজে ঘুষি দিয়ে শিক্ষকের নাক ফাটালেন আরেক শিক্ষক!
পরবর্তি সংবাদ‘নির্বাচন শান্তিপূর্ণই হয়েছে, তবে অনিয়মের শেষ ছিল না’