ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম সহ্য করা হবে না: প্রধানমন্ত্রী

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম সহ্য করা হবে না । তিনি বলেন, ‘অনেক সময় দুর্নীতির অভিযোগ উঠছে। তদন্তে গিয়ে দেখা যাচ্ছে এরকম কিছু ঘটেনি। কাজেই দুর্যোগের সময় কেউ কারও পেছনে লেগে থাকবে এটা ঠিক না। দুর্নীতি বা অনিয়ম হলে আমরা বরদাশত করবো না।‘

ঢাকা বিভাগের ৯টি জেলার জনপ্রতিনিধি এবং কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেশের বর্তমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সে তিনি এসব কথা বলেন। আজ বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) সকাল ১০টায় গণভবন থেকে এই কনফারেন্স শুরু হয়। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দেন ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, নরসিংদী, ফরিদপুর, মাদারীপুর, রাজবাড়ী, শরীয়তপুর ও গোপালগঞ্জ জেলার কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিরা।

সরকার প্রধান বলেন,  ‘মানুষ আতঙ্কগ্রস্ত হলে অমানুষে পরিণত হয়। একটা মা জ্বরে আক্রান্ত হলে তার সন্তানরা-স্বামী গিয়ে জঙ্গলে রেখে আসে। এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। বাংলাদেশে এরকম আচরণ কেন ঘটবে? করনো সন্দেহ হলে পরীক্ষা করান, চিকিৎসা করান, যত্ন নিন। জীবন আল্লাহর হাতে। যে কেউ যেকোনও সময় মারা যেতে পারে। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে কারও অমানবিক হওয়ার বা আচরণের যৌক্তিকতা নেই। করোনা আক্রান্ত সন্দেহে মানুষকে ঘর থেকে বের করে দেবে, আক্রান্ত ডাক্তারকে এলাকাছাড়া করবে, এরকম হতে পারে না।’

এসময় প্রধানমন্ত্রী রমজান মাসে ঘরে বসে তারাবি পড়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আপনারা ঘরে বসে তারাবি পড়েন। যে যার মতো করে পড়েন। আল্লাহকে ডাকতে হবে। ইবাদত করতে হবে আপনার মতো করে। যতটা ডাকতে পারবেন, সেটাই আল্লাহ কবুল করবে।’

তিনি বলেন, ‘কৃষি উৎপাদনের দিকে মনোযোগ দিন। কৃষি কাজ খোলা মাঠে হয়। করোনার ঝুঁকি কম। যারা দিনমজুর তারা যান চলাচল শুরু হলে গ্রামে যাবেন, ধান কাটবেন। ফসল উৎপাদনের দিতে মনোযোগ দিতে হবে। তবে জনসমাগম যাতে না হয়। খোলা মাঠে বড় জায়গায় যাতে হাট বসে। মাস্ক পরে যাবেন, বেচাকেনা করে চলে আসবেন। গরম পানি খাবেন, মৌসুমি ফলগুলো খাবেন।’

পূর্ববর্তি সংবাদটিফিনের জমানো টাকা করোনায় আক্রান্তদের সহায়তায় দান করল কাশ্মীরি শিশু
পরবর্তি সংবাদকরোনায় একদিনেই ১০ জনের মৃত্যু,নতুন শনাক্ত ৩৪১: স্বাস্থ্য অধিদফতর