সবক্ষেত্রে ব্যর্থ হয়ে তুঘলকি সিদ্ধান্ত নিচ্ছে সরকার : ফখরুল

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সব ক্ষেত্রে সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ হয়ে একেক সময় একেকটা তুঘলকি সিদ্ধান্ত নিচ্ছে সরকার। তিনি বলেন, তারা মানুষের মধ্যে আশা সৃষ্টি করার ক্ষেত্রেও ব্যর্থ হয়েছে। তাই সরকার একবার সিদ্ধান্ত নিলো গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিগুলো বন্ধ থাকবে। কিন্তু পরিবহন খোলা রাখলো। যে কারণে কর্মীরা সারাদেশে ছড়িয়ে গেল। আবার এখন গার্মেন্টস খুলেছে। কিন্তু গার্মেন্টস কর্মীদের যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা দরকার, তা নেই। গার্মেন্টস কর্মীদের অনেকেই এখন আক্রান্ত হচ্ছে সাভার আশুলিয়া, গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জে। সরকার ব্যর্থ হয়েছে গার্মেন্টস মালিকদের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করানোর ক্ষেত্রে।

সোমবার সকালে ঢাকা মহানগর উত্তর যুবদলের সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীরের উদ্যোগে রাজধানীর দক্ষিণ খান এলাকায় দরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের সময় বিএনপির মহাসচিব এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল দেশের সকল বিত্তশালীদের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, আপনারা সবাই এগিয়ে আসুন। আমরা যেন ভাই-বোনদের পাশে দাঁড়াতে পারি। সরকারকে আমরা বারবার বলেছি সবাইকে নিয়ে এক সঙ্গে আলোচনা করে পরামর্শ করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করুন। কিন্তু তারা তা করছেন না। কোন রাজনৈতিক দল বা বিশেষজ্ঞ কারো সঙ্গে তারা পরামর্শ করছে না। দুর্ভাগ্যজনকভাবে সরকার আমাদের সঠিক পথ দেখাতে পারেনি। জনগণের কাছে এ সরকারের কোনো জবাবদিহিতা নাই। এ কারণে মার্চ মাস পর্যন্ত তারা করোনাভাইরাসকে অবহেলা করেছে।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, সারা বিশ্ব যখন লকডাউন করছে- তখন তারা গ্রহণ করেনি। বিচ্ছিন্নভাবে স্থানীয়ভাবে লকডাউন করছে। ত্রাণ বিতরণ কাজটিও সরকার সঠিকভাবে করতে পারছে না। আর এ কারণে মানুষ খাদ্যের অভাবে ভুগছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এপ্রিলের ৪ তারিখে আমরা সরকারকে একটা প্রস্তাব দিয়েছিলাম। সাধারণ মানুষ যারা আছে এখন কাজ করতে পারবে না, তাদেরকে প্রতি মাসে ৫ হাজার টাকা করে দেয়ার জন্য আমরা বলেছি। তালিকা করে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ও  সেনাবাহিনীর মাধ্যমে এটা বণ্টন করা যেত। কিন্তু এ বিষয়ে এখনো পর্যন্ত তারা কোনো গুরুত্বই দেয়নি।

পূর্ববর্তি সংবাদঈদের ছুটিতেও কর্মস্থল ছাড়তে পারবেন না সরকারি চাকরিজীবীরা
পরবর্তি সংবাদ‘কারও কারও বক্তব্যে মনে হয়, তারা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার চেয়েও স্বাস্থ্য বিষয়ে বেশি জ্ঞান রাখেন’