‘রেড জোন’: পুরো এলাকা লকডাউনের ইচ্ছা সরকারের নেই

ইসলাম টাইমস ডেস্ক:  ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন এলাকার ৪৫টি এবং চট্টগ্রামের ১১টি এলাকাকে উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা বা ‘রেড জোন ‘ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে কিন্তু এর মানে এই নয়, এসব এলাকার পুরোটাজুড়ে লকডাউন করা হবে।

লকডাউন বাস্তবায়নের কাজে যুক্ত বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে,  সরকারের ইচ্ছা বড় এলাকা নয়, বড় এলাকার অধিক সংক্রমিত ছোট এলাকায় কার্যকর লকডাউন করা। আর এটি একযোগে আজ থেকেই শুরু হবে এমন নয়। পর্যায়ক্রমে তা হবে।

যেমন, ঢাকার রাজাবাজারের মধ্যে কেবল পূর্ব রাজাবাজার এলাকায় লকডাউন চলছে। আর যেসব এলাকা লকডাউন করা হবে সেখানে সাধারণ ছুটি থাকবে। ছুটির বিষয়ে সোমবার প্রজ্ঞাপন জারি হতে পারে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

জানা গেছে, করোনা প্রতিরোধে গঠিত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কেন্দ্রীয় কারিগরি দলের (গ্রুপ) গতকাল শনিবারের এক সভায় প্রাথমিকভাবে লাল বা উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে কতগুলো এলাকাকে চিহ্নিত করা হয়। এর মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে ১৭টি, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ২৮ এলাকা রয়েছে। এ ছাড়া চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এলাকায় ১‌০টি এলাকা রয়েছে। এখানে তুলনামূলক বড় এলাকাকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। যেমন, মিরপুর। কিন্তু এখন পর্যন্ত পুরো মিরপুর এলাকায় লকডাউনের কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

সিটি করপোরেশন এলাকায় এবারের ভিন্নমাত্রার লকডাউন বাস্তবায়নের কাজটি হচ্ছে সিটি করপোরেশনের অধীনে। সিটি করপোরেশনগুলো স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীনে। এই লকডাউন বাস্তবায়নের কাজে যুক্ত আছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। তিনি আজ  বলেন, সীমিত এলাকা নিয়ে লকডাউনের চেষ্টা হচ্ছে। কারণ এই পরিস্থিতিতে মোকাবিলার জন্য সামর্থ্যও একটি বিষয়।