কাশ্মির ইস্যুতে বাংলাদেশের নীরবতার উপর নয়া দিল্লির প্রশংসা

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মির ইস্যুতে বাংলাদেশের নিশ্চুপ অবস্থান অনেকের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ হলেও  নয়া দিল্লির কাছে প্রশংসিত হয়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস-এর খবরে বলা হয়েছে, জম্মু-কাশ্মির ও সেখানকার পরিস্থিতি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় হিসেবে বাংলাদেশ দীর্ঘদিন ধরে যে অবস্থান নিয়ে আসছে সেটির প্রশংসা করেছেন ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বুধবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ফোনালাপে কাশ্মিরের পরিস্থিতি তুলে ধরার প্রয়াসের একদিন পর বৃহস্পতিবার ভারত এই প্রশংসা করলো।

অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক পরীক্ষিত ও ঐতিহাসিক। জম্মু-কাশ্মির ও সেখানকার পরিস্থিতি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে বাংলাদেশ দীর্ঘদিন ধরে যে অবস্থান নিয়েছে সেজন্য আমরা সাধুবাদ জানাই। এই অবস্থান বাংলাদেশ সব সময় নিয়ে আসছে।

অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস অব পাকিস্তানের এক খবর অনুসারে, বুধবার ফোনালাপে শেখ হাসিনার সঙ্গে উভয় দেশের করোনাভাইরাস মহামারি পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন ইমরান খান। একই সঙ্গে তিনি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে ইসলামাবাদ সফরের আমন্ত্রণ এবং কাশ্মির ইস্যুতে মনোযোগী হওয়ার আহ্বান জানান।

খবর অনুসারে, শেখ হাসিনার সঙ্গে ফোনালাপে ‘আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও সমৃদ্ধির জন্য ইমরান খান জম্মু-কাশ্মির বিরোধের শান্তিপূর্ণ সমাধানের গুরুত্বের কথা তুলে ধরেন’।

তবে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে কাশ্মির ইস্যু নিয়ে আলোচনার বিষয়ে কিছুই উল্লেখ করা হয়নি।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের এ অবস্থান অনেক বুদ্ধিজীবীর নিকটেই প্রশ্নবিদ্ধ। তাদের মতে, অন্য কোনো দেশের ভেতরকার ব্যাপারে হস্তক্ষেপ না করার অর্থ এই নয় যে, অন্য দেশের অমানবিক কর্মকাণ্ড দেখে চুপ থাকা যাবে। কারো অনৈতিক কাজ দেখে চুপ থাকার অর্থ সে অনৈতিক কাজে সমর্থন দেয়া। এদৃষ্টিকোণ থেকে অনেকে বাংলাদেশের এই অবস্থানকে সমালোচনাযোগ্য মনে করেন।

পূর্ববর্তি সংবাদসেপ্টেম্বরের শুরুতে বা মাঝামাঝির দিকে খোলা হতে পারে স্কুল-কলেজ
পরবর্তি সংবাদইসলাম অবমাননাকারী নাস্তিক আসাদ নূরকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে: আল্লামা বাবুনগরী