বৈরুতের বিস্ফোরণে ২ বাংলাদেশি নিহত

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: লেবাননের রাজধানী বৈরুত বন্দরের একটি ওয়্যারহাউজে গতকাল মঙ্গলবারের ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় অন্তত দুজন বাংলাদেশির মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

আজ বুধবার দুপুরে সেখানকার বাংলাদেশ দূতাবাস একজনের নিহত হওয়ার তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে। লেবাননে বাংলাদেশ দূতাবাসের দূতালয়প্রধান আবদুল্লাহ আল মামুন আজ বিবিসি বাংলাকে বলেন, ‘এখন পর্যন্ত এক বাংলাদেশির মৃত্যুর বিষয়ে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। তিনি বৈরুতে একটি স্প্যানিশ প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন। লেবাননে বসবাসরত বাংলাদেশিদের মধ্যে আরও কেউ হতাহত হয়েছে কি না, এ ব্যাপারে অনুসন্ধান চলছে।’

এছাড়া বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ২১ সদস্য আহত হয়েছেন। তারা জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে মেরিটাইম টাস্কফোর্সের অধীনে নিয়োজিত। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব বৈরুত মেডিকেল সেন্টারে (এইউবিএমসি) ভর্তি করা হয়েছে। আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

লেবাননে বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, বৈরুতের গতকালের বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহত ব্যক্তির সংখ্যা বাড়তে পারে। প্রবাসীদের কাছ থেকে দূতাবাস তিনজনের বিষয়ে জেনেছ। তবে হাসপাতালে গিয়ে একজনের মরদেহ দেখে তা শনাক্ত করা গেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাবু সাহা ২৫ বছর ধরে লেবাননে কাজ করছেন। আজ দুপুরে বাবু সাহা প্রথম আলোকে বলেন, মাউন্ট লেবাননে রয়েছে নিহত মেহেদী হাসানের মরদেহ। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাদেশ্বরা গ্রামের মেহেদী বৈরুতের আশরাফি এলাকার একটি সুপার মার্কেটে কাজ করতেন। এ ছাড়া জিমাইজি এলাকার কর্মরত মিজান নামের অন্য এক বাংলাদেশি মারা গেছেন। শরিয়তপুর নিবাসী মিজান বিস্ফোরণস্থলের প্রায় এক কিলোমিটার কাছের এক রেস্তোরাঁয় কাজ করতেন।

বাবু সাহা জানান, এ পর্যন্ত ২৫ থেকে ৩০ জন বাংলাদেশি আহত হয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে। দূতাবাসকে হতাহত হওয়ার ব্যাপারে প্রবাসীরা তথ্য জানাচ্ছেন। দূতাবাসও চিকিৎসা সহায়তাসহ নানাভাবে প্রবাসীদের সহায়তা করছে। তবে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে হতাহত মানুষের সংখ্যা বাড়বে। কারণ বিস্ফোরণের সময় প্রবাসী বাংলাদেশিরা নিজেদের কাজে ব্যস্ত ছিলেন।

বিস্ফোরণের সময়ের বর্ণনা দিতে গিয়ে বাবু সাহা বলেন, ‘মঙ্গলবার বিস্ফোরণের সময়টাতে বাসার পাশের পার্কিংয়ে বসে ছিলাম। হঠাৎ ভূমিকম্পের মতো কিছু একটা ঘটেছে বলে মনে হলো। উঠে বসার পর লক্ষ করলাম, আমার পেছনের ১৩ তলা ভবনটি দুলছে। সামনের ১৭ তলা ভবনও দুলছে। মাটিতে দাঁড়ানোর পর মনে হলো ভূমিকম্প শুরু হয়েছে। আমি কোন দিকে যাব, ভেবে পাচ্ছিলাম না। কারণ, ভবন হেলে তো আমার ওপরই পড়বে। হঠাৎ দেখলাম, ভবনের কাচ ভেঙে পড়ছে। এটা দেখে দাঁড়িয়ে থাকলাম। মিনিট দশেক পর আকাশে ধোঁয়ার কুণ্ডলী দেখতে পেলাম।’

ঘটনার অব্যবহিত পরই বৈরুতে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল জাহাঙ্গীর আল মোস্তাহিদুর রহমান সরেজমিনে বানৌজা বিজয় পরিদর্শন করেন এবং আহতদের হাসপাতালে স্থানান্তর ও যথাযথ চিকিৎসা প্রদানে প্রয়োজনীয় সকল প্রকার সহযোগিতা করেন।

আরো পড়ুন: বৈরুতে বিস্ফোরণে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ২১ সদস্য আহত,একজনের অবস্থা গুরুতর

উল্লেখ্য, গত ২০১০ সাল হতে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ লেবাননে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশগ্রহণ করে আসছে। ভূ-মধ্যসাগরে মাল্টিন্যাশনাল মেরিটাইম টাস্কফোর্সের সদস্য হিসেবে বর্তমানে নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ ‘বিজয়’ ইউনিফিলে বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় নিয়োজিত রয়েছে। জাহাজটি লেবাননের ভূ-খণ্ডে অবৈধ অস্ত্র এবং গোলাবারুদ অনুপ্রবেশ প্রতিহত করতে দক্ষতার সাথে কাজ করে চলেছে। পাশাপাশি লেবানিজ জলসীমায় ওই জাহাজ মেরিটাইম ইন্টারডিকশন অপারেশন, সন্দেহজনক জাহাজ ও এয়ারক্রাফটের ওপর গোয়েন্দা নজরদারি, দুর্ঘটনা কবলিত জাহাজে উদ্ধার তৎপরতা এবং লেবানিজ নৌসদস্যদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদানে কাজ করে যাচ্ছে।

আরো পড়ুন: লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, কালো ধোঁয়ায় ছেয়ে গেছে গোটা এলাকা

পূর্ববর্তি সংবাদটিকটকে অশ্লীল ভিডিও বন্ধে আইনি নোটিশ
পরবর্তি সংবাদপরিস্থিতি বিবেচনায় মাদরাসা খোলার সিদ্ধান্ত স্থগিত