ইসলাম অবমাননার প্রতিবাদে রাজধানীতে বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের বিশাল বিক্ষোভ

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের আমীর মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী বলেছেন, ‘ফ্রান্স সরকার মুহাম্মদ সা, এর ব্যঙ্গচিত্র প্রচার করে বিশ্বের সকল মুসলমানের অন্তরে আঘাত করেছে। বাক স্বাধীনতার নামে কোন জাতির ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অধিকার কারো নেই।’

আজ শুক্রবার বাদ জুমা রাজধানীর সেকশন বেড়িবাধেঁ ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয়ভাবে মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা.এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদ ও ফ্রান্সের পণ্য বর্জণের দাবিতে পুরান ঢাকা ইমাম-মুসল্লী ঐক্য পরিষদ এর উদ্যোগে বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।

মাওলানা আতাউল্লাহ বলেন, ‘ফ্রান্সে প্রকাশিত ব্যঙ্গচিত্র বিশ্ব মুসলিমের সাথে যুদ্ধ ঘোষণার শামীল। ফ্রান্সের বিরুদ্ধে সারা বিশ্বে প্রতিবাদের যে ঝড় উঠেছে ফ্রান্স সরকার ক্ষমা না চাইলে প্রতিবাদ আন্দোলনের দাবানল থামবে না বরং জিহাদের রূপ নিতে পারে। নবীপ্রেমিকরা ফ্রান্সের পন্যবর্জন অব্যাহত রাখবে। ভারত সরকার ফ্রান্সের এ ধৃষ্টতা সমর্থন করায় ভারতীয় পণ্য বর্জনেরও আহবান জানান তিনি।’

সমাবেশে মাওলানা মাঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী বলেন, ‘ফ্রান্স সরকার নবীর বিরুদ্ধে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের মাধ্যমে বিশ্বমুসলিমকে উস্কে দিয়ে বিশ্বজুড়ে ধর্মযুদ্ধ বাধানোর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আল্লাহ-রাসূল সা.এর বিরুদ্ধে ধৃষ্টতা দেখালে কাউকে বিনা চ্যালেঞ্জে ছেড়ে দেয়া হবে না। কেউ আমাদেরকে ইসলাম ও নবীদের নিয়ে কটুক্তি করলে আমরা শহীদ হওয়ার স্বপ্ন দেখি।’

মুফতি সাখাওয়াত হোসেন রাজী বলেন, ‘আমাদের সরকার যদি ফ্রান্স সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে বিশ্বের ২০০ কোটি মুসলমান এ সরকারের সাথে থাকবে। তিনি অবিলম্বে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদে ফ্রান্সে মহানবী মুহাম্মদ সা.এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে নিন্দা প্রস্তাব পাশ করার দাবি জানান।’

মাওলানা জুনাঈদ কাসেমীর সভাপতিত্বে ও মাওলানা সাইফুল্লাহ হাবিবীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ইসলামবাগ বড় মসজিদের খতিব মাওলানা মাঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী, লালবাগ মাদরাসার মুহাদ্দিস মুফতি সাখাওয়াত হোসেন রাজী, মাওলানা তানভির আহমদ সিদ্দিকী, মুফতি রাফি বিন মুনির প্রমুখ।

পূর্ববর্তি সংবাদফিলিস্তিনিদের ঘরবাড়ি ধ্বংস না করতে ইহুদিদের প্রতি ‘আহবান’ ইইউ’র
পরবর্তি সংবাদকোরআন শিখে আমরাও মাওলানা হতে চাই: দেশের প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের মাদরাসা শিক্ষার্থী