তীব্র প্রতিক্রিয়ার মুখে উগ্র শ্লোগান থেকে পিছু হঠতে বাধ্য হলো হিন্দু বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: হেফাজতে ইসলাম, ইসলামী আন্দোলন, কওমী মাদরাসা ও আলেমদের নিয়ে উগ্র ও উস্কানিমূলক শ্লোগান দেওয়ার পর দেশব্যাপী তীব্র প্রতিক্রিয়ার মুখে উগ্র শ্লোগান থেকে পিছু হঠতে বাধ্য হলো বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ।

হিন্দু বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিতাই প্রসাদ ঘোষ সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে,  আমরা জানতে পেরেছি আমাদের সম্পূর্ণ অজ্ঞাতে সমাবেশস্থলের বেশ খানিকটা দূরে থেকে কতেক সংগঠনের বিরুদ্ধে নানান আপক্তিকর শ্লোগান দেওয়া হয়েছে। যে বা যারা অপকর্ম করেছে আমরা তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলতে চাই, এসব শ্লোগান আমাদের নির্ধারিত শ্লোগানের বাইরে।

এর আগে হেফাজতে ইসলাম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ও কওমি আলেম ওলামাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছে চট্টগ্রাম জাগো হিন্দু পরিষদ। এ আন্দোলনে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের কর্মীরা ইসলামি দলগুলো নিয়ে উগ্র ও সহিংস স্লোগান দিয়েছে।

হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের বিজ্ঞপ্তি।

‘মৌলবাদের আস্তানা, জালিয়ে দাও পুড়িয়ে দাও’, হেফজাতের আস্তানা, জালিয়ে দাও পুড়িয়ে দাও’, জ্বালো রে জ্বালো, আগুন জ্বালো’, ‘হেফাজতের গালে গালে, জুতা মারো তালে তালে’, ‘চরমোনাই’র গালে গালে, জুতা মারো তালে তালে’, কওমির দালালেরা, হুঁশিয়ার সাবধান’ ধইরা ধইরা জবাই কর, একটা দুইটা জবাই কর’। জাগো হিন্দু পরিষদের ফেসবুক পেজে আপলোড করা এক ভিডিওতে তাদের এসব স্লোগান দিতে দেখা গেছে।

রাজনৈতিক পর্যক্ষেক ও হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা ইসলাম টাইমসকে বলছেন, জনগণের চাপের মুখে নিজেদের শ্লোগান থেকে ফিরে আসার এই বক্তব্য কোনভাবেই সন্তোসজনক নয়।

‘হুঁশিয়ার সাবধান’ ধইরা ধইরা জবাই কর’ একটি দেশের সংখ্যাগুরু জনগণের ধর্মীয় সংগঠন হিসেবে পরিচিত দলগুলোকে নিয়ে এমন সহিংস শ্লোগান দেওয়ার পর প্রতিক্রিয়া ও প্রতিবাদের পর নিজেদের অবস্থান থেকে ফিরে আসছে সংগঠনটি। কতটা আক্রমণাত্মক ও বিধ্বংসী চিন্তা-ভাবনা লালন করলে একটি দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণদের নিয়ে এমন শ্লোগান দেওয়ার সাহস করা যায় তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব বিরোধী একটি গোষ্ঠি দেশে বিশৃঙ্খলা তৈরী করতে অনেক আগে থেকেই ওৎপেতে আছে, সুযোগ বুঝে তারা নিজেদের জানান দেওয়ার চেষ্টায় আছে। তাদের এজাতীয় মুসলিম বিদ্বেষ নতুন কিছু নয়, প্রায় সময় তারা তা প্রকাশ করে বিভিন্ন মাধ্যমে, তাই একটা নিন্দা ও প্রতিবাদ বিজ্ঞপ্তি কোনভাবেই সন্তোসজনক নয় বলে মত দিয়েছেন ইসলামী রাজনৈতিক পর্যক্ষেক ও হেফাজতে ইসলামের বিভিন্ন নেতা।

-এনটি

পূর্ববর্তি সংবাদ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ আরো ১ হাজার ৬২৩, মৃত্যু ২৫ জনের
পরবর্তি সংবাদ‘যৌন নির্যাতন’ ‘ট্যাক্স ফাঁকি’সহ যেসব কারণে গ্রেফতার হতে পারেন ট্রাম্প