হোটেলের খাবার খেয়ে কুমিল্লায় উপ-নির্বাচনে দায়িত্বরত ১৫০ পুলিশ সদস্য হাসপাতালে

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করতে এসে একটি রেস্তোরাঁর খাবার খেয়ে পুলিশ, আনসার ও গাড়ির চালকসহ দেড়শতাধিক ব্যক্তি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। এদের মধ্যে ৪১ জন বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, খাদ্যে বিষক্রিয়ায় কারণে অসুস্থ হয়েছেন তারা। আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ওই উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলছে। এদিকে নির্বাচন অনুষ্ঠান স্বাভাবিক রাখতে কুমিল্লা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্যদের সেখানে পাঠানো হয়েছে। উপজেলা সদরের ইত্যাদি নামের একটি রেস্তোরাঁ ওই পুলিশ সদস্যদের খাবার সরবরাহ করেছিল। বুধবার রাতে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই হোটেলের মালিককে আটক করেছে। বৃহস্পতিবার এসব বিষয় নিশ্চিত করেছেন ব্রাহ্মণপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী নাজমুল হক।

হাসপাতালে ভর্তি কনস্টেবল জোয়াহের ও নূর মোহাম্মদ জানান, নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করতে তারা বুধবার দুপুরে ব্রাহ্মণপাড়া আসেন। খাবারের ব্যবস্থা করা হয় উপজেলা সদরের ইত্যাদি রেস্তোরাঁ থেকে। খাবার খেয়ে তারা নিজ নিজ কেন্দ্রে রওনা হন। বিকেল থেকেই পেট ব্যথা, বমি ও ডায়রিয়া শুরু হয়। অবস্থার অবনতি হওয়া কয়েকজনকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু হাসনাত মো. মহিউদ্দিন মুবিন জানান, খাবারে বিষক্রিয়ায় ফলে অসুস্থ হয়েছেন তারা। ১৫০ জনের মতো প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। ভর্তি আছেন ৪১ জন। রাতে ওষুধের সংকট পড়ে যায়। রাত ১টার দিকে ওষুধ নিয়ে আসেন জেলা সিভিল সার্জন ডা.নিয়াতুজ্জামান মহোদয় ও বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা মো. মীর হোসেন মিঠু সাহেব।

স্থানীয় সংবাদকর্মী ইসমাইল নয়ন জানান, নির্বাচনের কারণে অনেকে দ্রুত ফার্মেসি বন্ধ করে দেয়। হাসপাতালে এত মানুষের ওষুধ নেই। রাতে আমরা বাজারের ফার্মেসি খোলার ব্যবস্থা করি।

ব্রাহ্মণপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী নাজমুল হক জানান, হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৪১ জনের মধ্যে আটজন গাড়ির চালক, একজন সিভিল স্টাফ ও ৩২ জন পুলিশ সদস্য। তাদের অনেকেই ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে কাজে ফিরেছেন। এদিকে রেস্তোরাঁ মালিককে আটক করা হয়েছে, তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ মো. নুরুল ইসলাম জানান, খাদ্যে বিষক্রিয়ায় ফলে অসুস্থ হওয়াদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে নির্বাচনে এর কোন প্রভাব পড়বে না। আমরা ইতিমধ্যে তাদের বিকল্প ফোর্স সেখানে পাঠিয়েছি।

ইজে

পূর্ববর্তি সংবাদফ্রান্সে ঘরে ইসলামী শিক্ষা বন্ধে পাশ হল নতুন আইন
পরবর্তি সংবাদএখন থেকেই শিশুদের যা শেখাতে হবে