নেপালে প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধে পার্লামেন্ট ভেঙে দিলেন প্রেসিডেন্ট

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: নেপালের পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবি ভাণ্ডারী। প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলির অনুরোধে পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়েছেন তিনি।

রবিবার সকালে মন্ত্রিসভার এক জরুরি বৈঠকে পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

নেপালের প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের বরাত দিয়ে এএনআই জানিয়েছে, হিমালয়ের দেশটিতে পরবর্তী সাধারণ নির্বাচন ২০২২ সালে অনুষ্ঠিত হবে। প্রেসিডেন্ট ভান্ডারী আজ ঘোষণা করেছেন যে, জাতীয় নির্বাচন ২০২১ সালের ৩০ এপ্রিল থেকে মে মাসের মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে।

২০১৭ সালে নেপালের পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় যার মেয়াদ ছিলো ২০২২ সাল পর্যন্ত।

দ্য কাঠমান্ডু পোস্ট-এর রিপোর্ট জানায়, সংবিধান পরিষদীয় আইনের একটি অধ্যাদেশ নিয়ে ক্রমাগত চাপ বাড়ছিল নেপালের প্রধানমন্ত্রী ওলির ওপর। এতে বলা হয়েছে, মাত্র তিনজন মন্ত্রীর উপস্থিতিতে যে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন প্রধানমন্ত্রী। গত মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট ভাণ্ডারীকে দিয়ে তা সই করিয়ে নিয়েছিলেন তিনি।এরপরই তার দল সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারায়। তিনি অন্য দলের সঙ্গে সমঝোতার পথে না গিয়ে সংসদ ভেঙে নতুন নির্বাচন দেওয়ার আহ্বান জানান। এছাড়া বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নিয়ে ওলির বিরুদ্ধে অসন্তোষ তৈরি হচ্ছিল।

নেপাল কমিউনিস্ট পার্টির এক নেতা মাধব নেপালকে উদ্ধৃত করে গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার বিষয়টি অসাংবিধানিক। এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা উচিত।

-এসএন