মসজিদে নববীর লাইব্রেরি: ইলম ‌পিপাসুদের তৃষ্ণা নিবারণের অবারিত পৃথিবী   

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: মসজিদে নববী সংলগ্ন লাইব্রেরি নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের শহর পবিত্র মদীনাবাসী ও আগত আশেকে রাসূলদের জন্য একটি জ্ঞান আহরণের কেন্দ্র হিসেবে বিশ্ববিখ্যাত। মদিনা এবং তার আশপাশের এলাকা থেকে প্রিয় নবীজির রওজা শরীফে উপস্থিত লোকজন নিজেদের সাধ্যমত এই ইলমের মারকায থেকে উপকৃত হতে পারেন। আর এভাবেই মসজিদে নববীর লাইব্রেরি ইলম ও মারেফাতের অতিশয় গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে রূপ নিয়েছে।

১৩৫০ হিজরীতে সৌদি আরবের প্রতিষ্ঠাতা শাহ আব্দুল আযীয মসজিদে নববীতে একটি লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব পেশ করেন। তখন সাইয়েদ আহমদ ইয়াসিনের তত্ত্বাবধানে লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠার কাজ শুরু হয়। বাবে ওমর ইবনুল খাত্তাব (রা.) সংলগ্ন ঘরকে তখন লাইব্রেরি ঘর বানানো হয়। এই দরজাটি মসজিদে নববীর প্রথম সম্প্রসারণের স্মারক হিসেবে মসজিদের উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত।

মসজিদে নববী দ্বিতীয়বার সম্প্রসারণের সময় লাইব্রেরির স্থান উত্তর-পশ্চিমে নির্ধারণ করা হয়। দ্বিতীয়বার নির্মাণের সময় লাইব্রেরীর হলরুমগুলোর পরিসর আরো বড় করা হয় এবং ১০ নম্বার গেট থেকে লাইব্রেরি পর্যন্ত পৌঁছতে একটি বৈদ্যুতিক সিঁড়ি প্রস্তুত করা হয়।

ইলম পিপাসুদের সুবিধার্থে সারা বছর ২৪ ঘন্টা এবং সপ্তাহের সাতদিনই লাইব্রেরিটি খোলা রাখা হয়। সেখানে যিয়ারতকারী ও গবেষকদের বিশ্রামেরও সুব্যবস্থা রয়েছে। বিভিন্ন পর্যায়ে মোট ১০ ধরনের ডিউটির ব্যবস্থা রয়েছে । লাইব্রেরির পরিচালনা অফিস ও শিশু বিষয়ক ইউনিটের অফিস একটি বিশাল হল রুম নিয়ে বেষ্টিত। সেখানে পর্যাপ্ত আলো, এয়ারকন্ডিশন, শীতকালে গরম, উন্নত মানের চেয়ার,  টেবিল, জমজমের পানি ও কম্পিউটারসহ উন্নত মানের সব আধুনিক জিনিসপত্র রয়েছে।

মসজিদে নববীর ৫১৬ টি আলমারিতে প্রায় ১ লাখ ৭৬ হাজার কিতাবের বিশাল ভান্ডার বিদ্যমান আছে। সেগুলোর বড় একটি অংশই কেনা হয়েছে আর অনেকগুলো হাদিয়া স্বরূপ এসেছে। ঘন্টায় প্রায় ৩০০ জন মানুষ লাইব্রেরি দেখাশোনা করে এবং কিতাবগুলোর পরিচর্যা ও হিসাবের সুবিধার্থে ৭২ প্রকারে সেগুলো কে আলাদা আলাদা তারতীব দেয়া হয়েছে। হরফে তাহাজ্জির তারতীব অনুযায়ী সাজানো হয়েছে। শিশুদের জন্য সীরাতে নববী, গল্প-কাহিনী ও তাদের উপযোগী প্রায় ১৩০ টি বিষয়ের কিতাব বিদ্যমান রয়েছে। মাখতুতাত (পাণ্ডুলিপি) এর অংশ প্রথম মঞ্জিল ও বাবে উসমান ইবনে আফফান এ অবস্থিত।

মাখতুতাত অংশে অসংখ্য প্রাচীন কিতাব ও বিভিন্ন যুগের কোরআনের পুরনো নুসখা (কপি),  ডিজিটাল ছবি, আধুনিক বিভিন্ন যন্ত্র এবং কম্পিউটার রাখা আছে। পুরো পৃথিবীতে লিখিত কোরআনের ৬০০টি নুসখা, ২৫০টি প্রকাশিত সহিফা, ১০৪০ টি জিলদ, ১৫৫০ টি শিরোনামে লিখিত রেসালাহ ও ২ লাখ ৬০ হাজার আধুনিক মাখতুতা সংরক্ষিত আছে। লাইব্রেরির কিতাবসমূহ বার্ষিক হিসেবে মেরামত করা হয়। এ লাইব্রেরিতে প্রতি বছর প্রায় ১২ হাজার কিতাব বাঁধাই করা হয় অথবা নতুনভাবে ছাপানো হয়।

আলআরাবিয়া ডট নেট থেকে অনুবাদ: শাহাদাত হুসাইন

-এমএসআই

পূর্ববর্তি সংবাদসিইসির বিরুদ্ধে অর্থ লোপাটের অভিযোগ: দুদককে তদন্তের আবেদন ১০ আইনজীবীর
পরবর্তি সংবাদট্রাম্প সমর্থকদের দাঙ্গা: চীনের ইন্টারনেট জগতে হাস্যরস