এবার আবদুল কাদের মির্জাকে পাবনায় পাঠাতে বললেন নিক্সন চৌধুরী

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: ফরিদপুর-৪ আসনের এমপি মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন এবার নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকে ‘পাগল’ আখ্যা দিয়ে ‘এসব পাগল বাইরে না রেখে, পাবনায় পাঠানো উচিত’ বলে মন্তব্য করেছেন।

রবিবার বিকালে ভাঙ্গা পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের চৌধুরীকান্দা সদরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত এক সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র কাদের মির্জাকে নিয়ে এসব বলেন নিক্সন চৌধুরী।

তিনি উপস্থিত জনতার উদ্দেশে বলেন, ‘আর একটা কথা কইতে মন চাইতেছে। না কইয়া পারি না। আগে দুই একটা ভাঙ্গার পাগল আমারে নিয়া কথা কইত। আমি এত বড় নেতাই হইছি, এখন ভিনদেশি পাগল আমার ওপর খেপছে। তারে আমি কিছু কইছি? তারে আমি চিনি? জীবনে নাম শুনছি? সে কয় আমি ভোট ডাকাতি কইরা এমপি হইছি। পাগলা স্বপ্নে না দেখলে এমন কথা কইতে পারে না’।

নিক্সন চৌধুরী আরো বলেন, ‘পাগলারেও আমি চিনি না, জীবনে দেহি নাই, জীবনে যাই নাই নোয়াখালী। আরে মিয়া নেতা হইতে চান? পরিচিতি চান? পাগলামি কইরা নেতা হওয়া যায় না। আপনাকে প্রমাণ করতে হবে পাগলা আমি আপনারে কিছু কইছি কিনা? সরকারের উচিত এই সব পাগল যথাশীঘ্রই পাবনায় পাঠানো। না হলে গণধোলাই এমন খাবে যে চেহারা চেনা যাবে না।’

প্রসঙ্গত পৌরসভার নির্বাচনে প্রচার চলা অবস্থায় ১৩ জানুয়ারি এক নির্বাচনী সভায় নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র মির্জা কাদের নিক্সন চৌধুরীকে জড়িয়ে একটি বক্তব্য দেন। যা পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হয়।

বক্তব্যে কাদের মির্জা নিক্সন চৌধুরীর ‘চুনোপুঁটি’ বলার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেন, ‘নিক্সন চৌধুরী সাহেব আপনি বলেছেন চনোপুঁটিদের কথা কে শোনে। নিক্সনকে জিগাই আপনার বয়স কত। আমার রাজনৈতিক বয়স আপনার বয়সের চেয়ে বেশি’।

এর আগে নিক্সন চৌধুরী ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা পরিষদ উপনির্বাচনে স্থানীয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়ে সারা দেশের আলোচিত হন। এ ছাড়া ভাস্কর্য নিয়ে ফেজাজতের নেতা মওলানা মামুনুল হককে নিয়ে বক্তব্য দিয়ে আলোচিত হয়েছিলেন।

সম্প্রতি গঠিত যুবলীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য হয়েছেন মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন।

ভাঙ্গা পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. বাকী মাতুব্বরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির অর্থবিষয়ক সম্পাদক ও ভাঙ্গা উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান সাহাদাত হোসেন, ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফাইজুর রহমান, ভাঙ্গা বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মুন্সী প্রমুখ।

ইজে