কোয়ারেন্টিন না মানা ব্যক্তিদের বন্দি রাখতে জার্মানিতে ‘কোভিড কারাগার’!

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: করোনার কড়াকড়ির নানা খবরের মধ্যে এবার জার্মানি নিয়ে এল কারাগার ব্যবস্থা। যারা কোয়ারেন্টিন মানবে না তাদের কারাগারে থাকতে হবে। হিটলারের দেশের আইন বটে! কোয়ারান্টিনের নিয়ম না মানা ব্যক্তিদের বন্দি রাখতে জার্মানির কয়েকটি স্থানীয় সরকার কর্তৃপক্ষ  নির্মাণ করেছে এ ‘কোভিড কারাগার’৷ এখন পর্যন্ত খুব অল্প সংখ্যক ব্যক্তিকে সেখানে রাখতে হলেও সিদ্ধান্তটি সমালোচিত হয়েছে৷ 

সম্প্রতি উত্তর জার্মানির শ্লেসভিগ-হলস্টাইন রাজ্যের ছোট শহর নয়ম্যুনস্টারের কিশোর সংশোধনাগারের অব্যবহৃত একটি এনেক্স ভবনের ছয়টি ঘরকে ‘কোভিড কারাগারে’ পরিণত করা হয়৷

তবে এটি গতানুগতিক কোনো জেল নয়৷ ‘বন্দিদের’ টিভি দেখতে দেয়া হবে৷ তারা ল্যাপটপ, ফোন ও বাসায় থাকার যত সুবিধা আছে, সব পাবেন৷ শুধু তাদের নিরাপত্তাপ্রহরীদের কথা শুনতে হবে৷ ৪০ জন সাবেক পুলিশ সদস্য স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে ঐ জেলে কাজ করছেন৷

কোয়ারান্টিনের নিয়ম ভাঙা কাউকে কোভিড কারাগারে পাঠাতে আদালতের নির্দেশ লাগবে৷ একজন ব্যক্তি নিয়মিত কোয়ারান্টিনের নিয়ম ভাঙছেন সেই প্রমাণ থাকতে হবে৷ এরপর পুলিশ ঐ ব্যক্তির বাড়িতে গিয়ে প্রথমে তাকে জরিমানা করতে পারে৷ শুধুমাত্র তারপরই আদালতের নির্দেশে তাকে কোভিড কারাগারে পাঠানো যেতে পারে৷

গত বছরের মে থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত জার্মানির ব্রান্ডেনবুর্গ রাজ্যে দুশর বেশি মানুষকে কোয়ারান্টিনের নিয়ম না মানার জন্য বিচার করা হয়েছে৷ এদের মধ্যে ত্রিশজনেরও কম ব্যক্তিকে কোভিড কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়৷

জার্মানির একটি কিশোর সংশোধন কেন্দ্রকে কোয়ারান্টিন না মানা ব্যক্তিদের কারাগার হিসেবে ব্যবহার করা হবে৷

জার্মানির ১৬টি রাজ্যের মধ্যে টুরিঙ্গিয়া, সারলান্ডসহ কয়েকটি রাজ্যের প্রশাসন ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছে, তাদের এমন কারাগার তৈরির কোনো পরিকল্পনা নেই৷

২০২০ সালে হেসে রাজ্যের প্রশাসন একটি হোটেলকে এমন কাজের জন্য ঠিক করেছিল৷ কিন্তু ‘চাহিদা না থাকায়’ সেটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে৷

এদিকে, সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা বেশি থাকা সাক্সোনি রাজ্যের প্রশাসন ড্রেসডেনে এ মাসেই একটি কোভিড কারাগার চালু করছে৷

স্থানীয় প্রশাসন কর্তৃক এমন কারাগার নির্মাণের সমালোচনা হচ্ছে৷ অনেকে একে মানবাধিকারের লঙ্ঘন বলে আখ্যায়িত করেছেন৷ জার্মানির বাম দলও এর সমালোচনা করেছে৷

সূত্র: ডি ডব্লিউ

-এসএন