১৪ বন্ধুসহ আইমান সাদিকের ‘সশস্ত্র” ছবি ভাইরাল, সামাজিক মাধ্যমে নানা প্রতিক্রিয়া

জুলফিকার জাহিদ।।

আইমান সাদিক। টেন মিনিট স্কুলসহ বেশ কিছু ইস্যুতে কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশে বিতর্কিত একটি নাম। আইমান সাদিকের সাথে তার সহযোগী ও বন্ধুরাও বরাবরই আলোচনায় থাকেন বিতর্কিত নানা ইস্যুতে। সামাজিক মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে একটি ছবি আপলোড দিয়ে সম্প্রতি আবার বিতর্ক উস্কে দিয়েছেন আইমান সাদিক।

আইমান সাদিকের ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে দেখা গেছে, তিনি তার ১৪ জন বন্ধুকে সাথে নিয়ে একটি ছবি আপলোড করেছেন, যেখানে তারা সবাই ‘অস্ত্র’ হাতে নিয়ে বিভিন্ন পোজ দিয়েছেন। ছবিটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই তা নিয়ে নেটিজেনদের মাঝে নানা মাত্রিক প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

কেউ কেউ বলেছেন, কিছুদিন আগে একজন দাড়ি-টুপি পরিহিত মানুষ খেলনার অস্ত্র হাতে শখের বসে ছবি তুলেছিলেন। খামখেয়ালির বসে তিনি সেই ছবি সামাজিক মাধ্যমে আপলোড করেন। এরপরই শুরু হয় তুলকালাম কাণ্ড। এমন ছবি আপলোড করার অপরাধে দাড়ি-টুপি পরিহিত সেই মানুষটিকে হাতকড়া, থানা, জেলের শিক পর্যন্তও দেখতে হয়েছে।

শুধু শখের বসে খেলনার অস্ত্র হাতে ছবি তোলায় কি অপরাধ ছিল সেই দাড়ি-টুপি পরিহিত মানুষটির। সামাজিক মাধ্যমে জোরালোভাবে এমন একটি প্রশ্ন ওঠাতে দেখা গেছে নেটিজেনদের।

একজন দাড়ি টুপি পরিহিত মানুষের যে কাজটা প্রশাসনের কাছে অপরাধ সেটাই আইমান সাদিকরা করলে একজন যুবকের হেয়ালিপনা! দাড়ি-টুপির প্রতি কিছু মানুষের কেন এতো বিদ্বেষ- জ্বালাপোড়া- এভাবেও লিখেছেন কেউ কেউ।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (রাত ৯.৩৪) ইন্সটাগ্রামে আইমান সাদিকের ‘সশস্ত্র’ সেই ছবি আপলোডের ২১ ঘণ্টা পার হয়েছে; কিন্তু তা নিয়ে দায়িত্বশীলদের কারো পক্ষ থেকে কোন প্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। প্রশাসনের লোকজনের মাঝেও দেখা গেছে এক ধরণের নির্লিপ্তভাব।

সময়ে সময়ে ইসলামী বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বির্তক তৈরিকারী আইমান সাদিক সেকুলারপন্থী ও পশ্চিমাপ্রেমী হিসেবে পরিচিত হওয়ার কারণেই কি তবে দায়িত্বশীলদের কাছ থেকে সে পাচ্ছে সিমপ্যাথী!- সামাজিক মাধ্যমে এমন নানান প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করতে দেখা গেছে নেটিজেনদের।

-আরএম