ট্রাম্প দোষী সাব্যস্ত না হওয়া মনে করিয়ে দেয় গণতন্ত্র ভঙ্গুর: বাইডেন

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: সিনেটের অভিশংসন বিচারে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বেকসুর খালাস পাওয়াকে ‘গণতন্ত্রের জন্য অন্ধকার অধ্যায়’ ও ‘গণতন্ত্রের ভঙ্গুরতার আলামত’ বলে অভিহিত করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

শনিবার সিনেটে বিচারের রায় ঘোষণার পর নিজের প্রতিক্রিয়ায় এই মন্তব্য করেছেন তিনি। খবর রয়টার্সের।

জো বাইডেন বলেন, চূড়ান্ত ভোটে হয়ত দোষী সাব্যস্ত হননি। কিন্তু তার বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। এটি আমাদের ইতিহাসের অন্ধকার অধ্যায়। যা আমাদের মনে করিয়ে দেয় গণতন্ত্র ভঙ্গুর। তাই একে সব সময় রক্ষা করতে হবে।

সিনেটে ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করার জন্য দুই-তৃতীয়াংশের রায় প্রয়োজন ছিল। কিন্তু বিচারে ৫৭ জন দোষী সাব্যস্ত করেন কিন্তু ৪৩ তাকে নির্দোষ বলে অভিহিত করেন। ফলে দ্বিতীয়বার সিনেটে অভিশংসিত হওয়া থেকে রক্ষা পেলেন তিনি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আরও বলেন, আমাদের সদা সতর্ক থাকতে হবে। সহিংসতা ও চরমপন্থার কোনও স্থান আমেরিকায় নেই। আমেরিকান হিসেবে আমাদের সবার দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে। বিশেষ করে নেতা হিসেবে আমাদের সত্যকে রক্ষা ও মিথ্যাকে পরাজিত করতে হবে।

বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিজয় অনুমোদনের দিনে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটলে ট্রাম্প সমর্থকদের হামলা ও পরে সৃষ্ট দাঙ্গায় একজন পুলিশ সদস্যসহ পাঁচ জন নিহত হন। দাঙ্গা উস্কে দেওয়ার অভিযোগ এনে জানুয়ারিতে ট্রাম্পকে অভিশংসিত করে মার্কিন কংগ্রেসের ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদ। ওই পরিষদ থেকে আসা আইনপ্রণেতারা চলতি সপ্তাহে সিনেটরদের কাছে তাদের মামলা উপস্থাপন করেছেন। এরইমধ্যে সিনেটে ট্রাম্পকে অভিশংসিত করার প্রশ্নে বিচার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। যুক্তি-তর্ক উপস্থাপন শেষে শনিবার অনুষ্ঠিত হয় ভোটাভুটি।

এর আগে ২০১৯ সালে হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভে অভিসংশনের মুখোমুখি হন ট্রাম্প। সেবারও ভোটাভুটিতে রক্ষা পেয়েছিলেন তিনি। তখন তার বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতার অপব্যবহার এবং কংগ্রেসের কার্যক্রমে বাধা দেয়ার অভিযোগ ছিল।

-এসএন