মিয়ানমারে বিক্ষোভ দমাতে নির্বিচারে পুলিশের গুলি, নিহত বেড়ে ১৮

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: সামরিক অভ্যুত্থান বিরোধী বিক্ষোভে অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠেছে মিয়ানমার। রবিবার বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের তুমুল সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নিহত হন অন্তত ১৮ জন, আহত বহু।

জাতিসংঘের মানবাধিকার অফিসের বরাতে আলজাজিরা জানায়, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে পুলিশের হামলায় ১৮ জন নিহত হয়েছেন।

রবিবার ইয়াঙ্গুন, মান্দালয় এবং দেওয়েই শহরে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। চলমান বিক্ষোভে এদিনও সেনাশাসন হটানো ও গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার দাবিতে রাস্তায় নেমে আসে জনতা।

বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে পুলিশ তাজা গুলি, রাবার বুলেট ও টিয়ার গ্যাস চালায়। এতে বড় ধরনের হতাহতের ঘটনা ঘটে।

১ ফেব্রুয়ারি সেনাবাহিনী ক্ষমতা দখল করার পর সবচেয়ে বেশি রক্তক্ষয়ী হয়ে ওঠে এদিন।

বিক্ষোভের ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া করছে,সড়কে বিক্ষোভকারীরা অস্থায়ী বাধা তৈরি করেছে এবং বেশ কয়েকজন শরীর রক্তে ভেসে গেছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অসমর্থিত সূত্রে নিহতদের সংখ্যা আরও বেশি বলে জানা যাচ্ছে, ২০ জনের বেশি।

নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে মিয়ানমারের ক্ষমতায় আসে সেনাবাহিনী। গ্রেপ্তার করা হয় অং সান সু চিসহ তার দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) শীর্ষস্থানীয় নেতাদের। অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে দেশটিতে বিক্ষোভ চলমান রয়েছে।

সেনা অভ্যুত্থানের পর ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। রাজধানী নেপিডোতে সেনাশাসন বিরোধী বিক্ষোভকালে গুলিতে আহত হন ২০ বছরের এক তরুণী। তিনি নেপিডোর একটি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

২০ ফেব্রুয়ারি একদিনে মারা যান দুজন। একটি শিপইয়ার্ডের কর্মীদের সেনাবিরোধী আন্দোলন নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ গুলি চালালে ওই দুজন প্রাণ হারান।

-এনটি