স্বাভাবিকভাবেই চলছে টঙ্গীর ইজতেমা মাঠের প্রস্তুতি ও অন্যান্য আমল

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভারতের বিতর্কিত তাবলিগি মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধলভির অনুসারীরা যে কোনো মূল্যে ইজতেমা মাঠ দখল এবং আজ ৩০ ডিসেম্বর (শুক্রবার) থেকে সেখানে ৫ দিনব্যাপী জোড় করার ঘোষণা দিলেও শেষ পর্যন্ত তা হয়নি।

ইজতেমার মাঠ এখনও তাবলিগি সাথী ও উলামায়ে কেরামের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হচ্ছে। প্রশাসনও উলামায়ে কেরামকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করছে।

ইজতেমার মাঠের সর্বশেষ অবস্থা জানতে যোগাযোগ করলে মাঠে অবস্থানরত মাওলানা আবু হুরায়রা বলেন, ‘আল হামদুলিল্লাহ! মাঠের পরিবেশ সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ। কোনো ধরনের বিশৃংখলা নেই এখানে। সাথীরা যার যার মতো আমলের সাথে জুড়ে আছেন।’

ইজতেমার জন্য মাঠ প্রস্তুতের কাজ এবং দৈনন্দিন আমল সবকিছু স্বাভাবিকভাবেই চলছে বলে জানান তিনি।

তবে ইজতেমার মাঠে প্রবেশের পথগুলোতে কড়া পাহারার ব্যবস্থা করা হয়েছে। মাঠে প্রবেশের জন্য পরিচয় নিশ্চিত করতে হচ্ছে। মাওলানা সাদের অনুসারীরা মাঠ দখলের হুমকি দেয়ার কারণেই এটা করা হয়েছে বলে দাবি করেন সাল লাগানো (এক বছর তাবলিগের কাজ করা) এই আলেম।

ইজতেমার মাঠে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা রোধ করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকেই পাহারার ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে এবং পুলিশ এই কাজে সহযোগিতা করছেন বলে জানিয়েছেন টঙ্গী মাঠের ব্যবস্থাপনায় থাকা একাধিক সাথী।

মাদরাসার ছাত্রদের জমায়েত বিষয়ে মাওলানা আবু হুরায়রা বলেন, ‘নিয়মতান্ত্রিকভাবে মাদরাসার ছাত্ররা মাঠে এসেছে। তাদেরকে বিশেষ কোনো কারণে আনা হয়নি। কিন্তু সাদপন্থীরা যেহেতু ছাত্র দিয়ে মাঠ দখলের অভিযোগ করছে তাই আমরা চেষ্টা করছি তাদেরকে মাঠ প্রস্তুত বা গেট পাহারার কাজের চেয়ে আমলে বেশি বেশি জুড়ে রাখতে।

উল্লেখ্য, গত এক সপ্তাহ যাবত সাদপন্থীরা সাংবাদিক সম্মেলন করাসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ৩০ তারিখ মাঠ দখলের হুমকি দিয়ে আসছিলো। তবে সাধারণ সাথীদের দৃঢ়তা ও প্রশাসনের সজাগ সহযোগিতা থাকায় তারা কিছুটা পিছুপা হয়েছে বলেই মনে হচ্ছে।

তবে ঢাকার বিভিন্ন পয়েন্ট সাদপন্থীরা একত্র হচ্ছে বলেও জানতে পেরেছে ইসলাম টাইমস।

পূর্ববর্তি সংবাদএখন দেশে কোনো জামায়াত নেই: কাদের সিদ্দিকী
পরবর্তি সংবাদসদিচ্ছা থাকলে নির্বাচন কমিশন এখনো আস্থার পরিবেশ তৈরি করতে পারে : মুফতি আবুল হাসান মুহাম্মাদ আবদুল্লাহ