মেননের আলোচনায় এবার ফিলিস্তিন ও ট্রাম্পের পরিকল্পনা ইস্যু

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি, বামনেতা রাশেদ খান মেনন আজ জাতীয় সংসদে ফিলিস্তিন ও ট্রাম্পের পরিকল্পনা ইস্যু নিয়ে কথা বলেছেন। ফিলিস্তিন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পরিকল্পনার বিষয়ে বাংলাদেশের নীরবতার সমালোচনা করেছেন মেনন। তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের এই পরিকল্পনা ফিলিস্তিন সরকার, ওআইসি, ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রত্যাখ্যান করেছে। বাংলাদেশ সবসময় ফিলিস্তিনের পক্ষে দাঁড়ালেও এই পরিকল্পনার ব্যাপারে বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত কোনও শব্দ উচ্চারণ করেনি। ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভয়ে বাংলাদেশ চুপ কি না?

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে এই বক্তব্য দেন মেনন। এর আগে জাতীয় সংসদে গ্রেফতার বাউলের মুক্তি ও মিজানুর রহমান আজহারিকে গ্রেফতার করার দাবি, ওয়াজ মাহফিলের বিভিন্ন বিষয়, পাঠ্য বই থেকে হিন্দু লেখকদের লেখা সরিয়ে ফেলা হচ্ছে-এমন কথা বলে তিনি আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেন।

মেনন বলেন, ‘ফিলিস্তিন নিয়ে বাংলাদেশের নীতি হলো, তাদের স্বাধীনতা সংগ্রামকে সমর্থন করা। সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে সঙ্গে নিয়ে ফিলিস্তিন সম্পর্কে একটি পরিকল্পনা প্রকাশ করেছেন। সেখানে ফিলিস্তিনকে ইসরাইলের হাতে তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ পরিকল্পনায় ফিলিস্তিনের যতটুকু জমি রয়েছে সেটা পুরনো ফিলিস্তিনের মাত্র ১২ শতাংশ।’

মেনন আরো বলেন, ‘কিছুদিন পর ডোনাল্ড ট্রাম্প ভারতে আসবেন। সেখানে মোদির সঙ্গে মিলে এই অঞ্চলের ভাগ্য নির্ধারণ করবেন। সেখানে বাংলাদেশ কোন অবস্থায় থাকবে, এই ভয়ে বাংলাদেশ ভীত কি না, জানি না।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেনের সমালোচনা করে মেনন বলেন, ‘দুদিন আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সংসদে বক্তৃতা দিয়েছেন। তিনি অর্থনীতির কথা বলেছেন। কিন্তু সীমান্তে হত্যা, পররাষ্ট্রনীতির কথা, ফিলিস্তিনের সমস্যার কথা তার বক্তব্যে ছিল না। সুদূর ভবিষ্যতে নাকি রোহিঙ্গা সংকটের একটি সমধান আসবে, অদূর ভবিষ্যতে নয়।’

মেননের বক্তব্যের পর ৩০০ বিধিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, ‘ফিলিস্তিন সম্পর্কে বাংলাদেশের যে নীতি ছিল, সেটা এখনও বহাল আছে।’ এ নিয়ে সন্দেহের কোনও কারণ নেই।

পূর্ববর্তি সংবাদজেলের মধ্যে খালেদা জিয়াকে মেরে ফেলার ইচ্ছা শেখ হাসিনার নেই: ওবায়দুল কাদের
পরবর্তি সংবাদভারতে ট্রাম্পের সফরের আগেই কাশ্মীর নিয়ে মার্কিন সিনেটরদের উদ্বেগ প্রকাশ, চাপে মোদী সরকার