যৌনকর্মীর জানাজার নামাজ : আলেমদের আসল অবস্থান কী?

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : গত ২ ফেব্রুয়ারি রাজবাড়ির দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে এক পতিতার মৃত্যু হলে পুলিশের তত্ত্বাবধানে তার জানাজার নামাজ পড়া হয়। এবং ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী তাকে দাফন করা হয়। এ নিয়ে সম্প্রতি একাধিক সংবাদমাধ্যম বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রতিবেদনগুলোতে দাবি করা হয়েছে, বাংলাদেশে আলেমগণ পতিতাদের জানাজা পড়ার বিরোধিতা করে আসছেন, যার ফলে জানাজা ছাড়াই তাদেরকে মাটিতে পুঁতে ফেলা হয় কিংবা নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হয়।

পতিতাদের জানাজার নামাজ পড়ার বিরোধিতা আলেমগণ আসলেই করেন কি না এবং পতিতাদের জানাজার ব্যাপারে ইসলামের নির্দেশনা কী এ বিষয়ে ইসলাম টাইমসের পক্ষ থেকে কথা বলা হয়েছে মাওলানা আবু সায়েমের সাথে।

মাওলানা আবু সায়েম জানান, ব্যভিচারে লিপ্ত হওয়া কবিরা গুনাহ। তাও যদি হয় প্রকাশ্যে ঘোষণা দিয়ে এবং পেশা বানিয়ে তাহলে তার ভয়াবহতা যে কত বেশি তা তো বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু এমন কাজে জড়িত ব্যক্তি যদি কোন মুসলমান হয় তাহলে তার পেশাটি ভয়াবহ কবিরা গুনাহ হলেও মৃত্যুর পর তাকে কাফন পরিয়ে জানাজা দিতে হবে এবং অন্যান্য মুসলমানদের মতো তাকে দাফন করতে হবে।

“অবশ্য কোন বড় আলেম এবং সমাজের শীর্ষ অনুসরণীয় ব্যক্তিবর্গের তার জানাজায় অংশগ্রহণ না করা উচিত। বরং সাধারন লোকজন দিয়ে তার জানাযা ও কাফন-দাফনের কাজ সম্পন্ন করাই শরীয়তের নির্দেশ। যেন অন্যরা তা দেখে শিক্ষা গ্রহণ করে এবং এধরনের কাজ থেকে বিরত থাকে।” যোগ করেন মাওলানা আবু সায়েম।

পূর্ববর্তি সংবাদভারতে মসজিদে করা হচ্ছে হিন্দুদের যোগ ব্যায়াম
পরবর্তি সংবাদআ. লীগ নেতা সাবেক এমপি রহমত আলীর মৃত্যু, শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী