ইস্তাম্বুলে অবমাননাকর চিত্র প্রদর্শন, সমাজ মাধ্যমে ‘কাবা আমাদের কাছে পবিত্র’ হ্যাশট্যাগ

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: ইস্তাম্বুলের বসফরাস বিশ্ববিদ্যালয়ে পবিত্র কাবা শরীফের একটি অবমাননাকর চিত্র চারুকলা প্রদর্শনীতে দেখানোর পর জনতার মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

ছবিটিতে পবিত্র কাবা শরীফের সাথে সমকামীদের একটি প্রতীক ব্যবহার করা হয়েছিল, যার জেরে এখন পর্যন্ত পাঁচ জনকে গ্রেপ্তারের সংবাদ পাওয়া গেছে।

তারা একটি চিত্রকর্মের মাধ্যমে এলজিবিটি প্রতীকের সঙ্গে মসজিদের ছবি তুলে ধরেছে।

ইস্তাম্বুলের গভর্নর অফিস জানিয়েছে, সৌদি আরবের মক্কায় অবস্থিত মহান মসজিদের সঙ্গে বেশ কয়েকটি এলজিবিটি গোষ্ঠীর পতাকা এঁকেছে শিক্ষার্থীরা। এটা ‘ধর্মীয় বিশ্বাসকে পরিহাস’ করে একটি ‘নোংরা হামলা’ বলে মন্তব্য করেছে ইস্তাম্বুলের গর্ভনর অফিস।

এ ন্যাক্কারজনক ঘটনার পর তুরস্কে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা Kabe Kutsalımızdır কাবে কুতসালামেজদাদর (“কাবা আমাদের কাছে পবিত্র”) হ্যাশট্যাগ ব্যবহার চলছে। এদিকে ইস্তাম্বুলের একটি আদালতের বিচারক ঘটনার তদন্তের ঘোষণা দিয়েছেন এবং অপরাধীদের অনুসন্ধান অব্যাহত রয়েছে। তুরস্কের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের প্রধান আলী আরবাশ বলেছেন, দোষীদের অনুসন্ধান করা হচ্ছে। আইন অনুযায়ী তাদের শাস্তি দেওয়া হবে। এমপি মোস্তফা শান্তুবও বসফরাস বিশ্ববিদ্যালয়ে এ অবমাননাকর পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা জানিয়ে দোষীদের শাস্তির দাবি করেছেন।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী আহমেত দাউদ ওগলু এই ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, কাবা শরীফের অবমাননাকে স্বাধীনতা বলা গ্রহণযোগ্য নয়। বিষয়টির তদন্ত হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি।  তুরস্কের রাষ্ট্রপতির মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন বলেছেন, কাবার অবমাননা বাক-স্বাধীনতা নয়। যারা এ অপকর্মটি করেছে তাদের শাস্তি দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, তুরস্কের ইস্তাম্বুলের সম্মানজনক বোগাজিচি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সরকারপন্থী একজন নতুন রেক্টর নিয়োগের পর গত ৪ জানুয়ারি থেকে বিক্ষোভ করছে। সেখানেই একদল শিক্ষার্থী ওই পোস্টার প্রদর্শন করে।

পোস্টারে কাবার সঙ্গে  সমকামী, ট্রান্সজেন্ডার এবং অ্যাসসেক্সুয়েল গোষ্ঠীর পতাকাসহ অর্ধ-নারী এবং অর্ধ-সাপের একটি পৌরাণিক প্রাণী ছবি প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল। এর নিচে লেখা হয় প্রথাগত লিঙ্গ ভূমিকা নিয়ে সমালোচনা করতে এই চিত্রকর্ম।

সূত্র: ইকনা