ছেলের ইমামতিতে শাহ সাহেবের জানাযা সম্পন্ন, লাখো মানুষের অশ্রুসিক্ত বিদায়

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: লাখ লাখ মানুষের উপস্থিতিতে সম্পন্ন হয়েছে দেশের বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ সাহেবের জানাযার নামায। জানাযার নামাযের ইমামতি করেছেন হযরতের ছোট ছেলে  মাওলানা আনযার শাহ তানীম। আজ বৃহস্পতিবার ৩০ জানুয়ারি দুপুর ২ টা ৫ মিনিটে সম্পন্ন হয় জানাযার নামায। দেশের বিশিষ্ট উলামায়ে কেরাম অংশ নেন শীর্ষস্থানীয় এ আলেমেদ্বীনের জানাযায়।

জানা গেছে, জানাজার নামাজের নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই শোলাকিয়ার বিশাল মাঠ ছিল কানায় কানায় ভরপুর ছিল।প্রাণপ্রিয় মুরুব্বী ও রাহবরকে শেষবারের মতো দেখতে ও জানাযায় অংশ নিতে সারাদেশ থেকে অসংখ্য ভক্ত,মুরীদ ও ছাত্ররা জমায়েত হন কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে। এদিন শোলাকিয়ায় নামে ধর্মপ্রাণ মানুষের ঢল।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, জানাজার নামাজের সময় মাঠে জায়গা না পেয়ে মাঠের আশে পাশের রাস্তায়, বাড়ির ছাদে, দোকান পাটে দাাঁড়িয়ে মানুষ জানাযায় শরিক হয়। অনেক মানুষ শরিক হতে না পেরে দ্বিতীয়বার জমামাতের কথা বললেও শরয়ী নিষেধাজ্ঞার কারণে তা করা হয়নি।

আগত মুসুল্লিদের উদ্দেশে আল্লামা মাহমুদুল হাসান, আল্লামা নুর হুসাইন কাসেমী, আল্লামা সাজিদুর রহমান, মুফতি ওয়াক্কাস, মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, মাওলানা আবদুর রহমান হাফেজ্জী, মাওলানা আবদুল হক, মাওলানা খালিদ সাইফুল্লাহ সাদীসহ বিভিন্ন উলামায়ে কেরাম বয়ান করেন বলে জানা গেছে।

এসময় কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক হযরতের দীর্ঘ স্মৃতিচারণ করেন। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারি কৃষিবিদ মশিউর রহমান উপস্থিত হয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী তাকে জানাযায় অংশ নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

এছাড়াও জানাযায় অংশ নিয়েছেন মুফতি আবুল হাসান মুহাম্মাদ আবদুল্লাহ, মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা উবাউদুর রহমান খান নদভী, মাওলানা আবদুল লতিফ নিজামী, মাওলানা শরীফ মুহাম্মদ, মুফতি ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা মুসলেহ উদ্দীন রাজু প্রমুখ।   

মরহুম আল্লামা আনোয়ার শাহ সাহেবের জানাযার নামাযের ইমামতি দেশের বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন আল্লামা শাহ আহমদ শফি সাহেবের করার কথা থাকলেও আবহাওয়া খারাপ থাকার কারণে বয়োবৃদ্ধ এ আলেম জানাযায় অংশ নিতে পারেননি।

সরেজমিনে দেখা গছে, জানাযা শেষ হয়ে গেলেও এখনও কমেনি মানুষের জটলা। প্রাণপ্রিয় মুরুব্বি এ রাহবরকে বিদায় দিতে আসা জনতা আস্তে আস্তে ফিরছেন নিজেদের আবাস্থলের উদ্দেশ্যে। শহর খালি হতে আজ সন্ধ্যা হয়ে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার ২৯ জানুয়ারি বিকাল সোয়া পাঁচটার দিকে ইন্তিকাল করেন দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেমেদ্বীন আল্লামা আযহার আলী আনোয়াে শাহ। তিনি ছিলেন একাধারে বেফাকুল মাদারিসের সিনিয়র সহ সভাপতি, হাইআতুল উলয়ার সম্মানিত সদস্য, কিশোরগঞ্জের জামিয়া ইমদাদিয়ার মহা পরিচালক এবং ঐতিহ্যবাহী শহিদী মসজিদের খতিব।

এর আগে দীর্ঘ দিন ধরে অসুস্থ আল্লামা আনোয়ার শাহ প্রায় দুই মাস থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংকক থেকে চিকিৎসা করে আসেন। কিছুটা সুস্থ হলে দেশে ফিরে আসেন। তবে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত শুক্রবার তাঁকে রাজধানীর শঙ্কর ইবনে সিনা হাসপাতালে তাকে ভর্তি  করা হয়। পরে অবস্থা আরও সঙ্কটাপন্ন হলে তাকে আইসিউতে লাইফ সাপোর্টে নিয়ে যাওয়া হয়। লািইফ সাপোর্টেই গতকাল বুধবার ২৯ জানুয়ারি বিকাল পাঁটার কিছু পরে তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।

পূর্ববর্তি সংবাদসৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় তিন বাংলাদেশি নিহত
পরবর্তি সংবাদফিলিস্তিনিদের হটাতে সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে দখলদার রাষ্ট্র ইসরায়েল